দীর্ঘ ৩ বছর পর উল্লেখযোগ্য সংখ্যক শিক্ষার্থীদের উপসি’তে পরিপূর্ণ হয়েছিল সরাইল মহিলা কলেজ। অনাঢ়ম্বর এক অনুষ্ঠানের মাধ্যমে আজ বুধবার উদ্বোধন করা হয়েছে তৃতীয় ব্যাচের পাঠদান। ফুলেল শুভেচ্ছায় সিক্ত হয়েছে সদ্য ভর্তিকৃত একাদশ শ্রেণির শিক্ষার্থী ও অতিথিরা। এ কলেজ থেকে প্রথম অংশ গ্রহনকারী শিক্ষার্থীদের শতভাগ পাশের আনন্দে ভাসছিলেন সকলেই। গৌরবোজ্জ্বল ঐতিহাসিক ফলাফলের প্রশংসা করে অভিনন্দন জানিয়েছেন প্রতিষ্ঠাতা, ব্যবস্থাপনা পরিষদ ও প্রভাষকদের। নারী শিক্ষার সম্প্রসারণের লক্ষে সরাইলের সকলকে একমাত্র মহিলা কলেজটির পাশে দাঁড়ানোর আহবান জানিয়েছেন বক্তারা। দ্বিতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী মঞ্জিলার কোরআন তেলাওয়াত ও সাংবাদিক দীপক কুসার দেবনাথের গীতা পাঠের মাধ্যমে শুরূ হয় অনুষ্ঠান। ব্যবস্থাপনা পরিষদের সভাপতি মো. আইয়ুব খানের সভাপতিত্বে ও প্রভাষক মোহাম্মদ মাহবুব খানের সঞ্চালনায় উদ্বোধন পূর্ব আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি ছিলেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. আরিফুল হক মৃদুল। স্বাগত বক্তব্য রাখেন অধ্যক্ষ মোহাম্মদ বদর উদ্দিন। বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন- উপজেলা পরিষদের মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান (প্যানেল চেয়ারম্যান) রোকেয়া বেগম, ভাইস চেয়ারম্যান মো. আবু হানিফ, উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা: মো. নোমান মিয়া, সরাইল থানার অফিসার ইনচার্জ মো. আসলাম হোসেন, মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা সহিদ খালিদ জামিল খান, বাংলাদেশ আইন সমিতির সাবেক সভাপতি ও সরাইল প্রেসক্লাবের আজীবন সদস্য এডভোকেট মো. কামরূজ্জামান আনসারী, অরূয়াইল ইউপি চেয়ারম্যান মো. মোশাররফ হোসেন ভূঁইয়া, আ’লীগ নেতা মো. আমজাদ হোসেন, প্রতিষ্ঠাতা সদস্য ও সাবেক চেয়ারম্যান মো. হুমায়ুন কবির, সাবেক চেয়ারম্যান মো. আব্দুল জব্বার, শিক্ষানুরোগী মো. বাবুল মিয়া, কৃষকলীগের সভাপতি ও সাংবাদিক মো. শফিকুর রহমান, উপজেলা যুবলীগের সাবেক আহবায়ক মো. মাহফুজ আলী, প্রেসক্লাবের সহসভাপতি মো. জুলকার নাঈন, প্রেসক্লাবের আজীবন সদস্য ফয়সাল আহমেদ মৃধা, রূহুল আমীন রূবেল, মো. শফিকুর রহমান প্রমূখ। নারী শিক্ষার্থীদের উদ্যেশ্যে বক্তারা বলেন, দেশে এখন আর নারীরা পিছিয়ে নেই। দিনদিন শুধু এগিয়েই যাচ্ছে। শিক্ষায় কঠোর অধ্যাবসায় দ্বারা স্বাবলম্বি ও উজ্জ্বল নক্ষত্র হয়ে দেশ জাতীর সেবা করা সম্ভব। মহিলা কলেজের শিক্ষক ও শিক্ষার মানের প্রশংসা করে নিয়মিত পাঠ গ্রহন ও পড়ালেখায় মনযোগি হওয়ার আহবান জানান। স্থানীয় জনপ্রতিনিধিসহ সকল শ্রেণি পেশার মানুষকে এই শিক্ষা প্রতিষ্ঠানটিকে ঠিকিয়ে রাখার সংগ্রামে অংশ গ্রহন করার অনুরোধ করেছেন। প্রসঙ্গত: ২০২১ খ্রিষ্টাব্দের উচ্চ মাধ্যমিক পরীক্ষায় মহিলা কলেজের পাসের হার শতভাগ। ২১-২২ শিক্ষা বর্ষে মানবিক বিভাগের দেড়শত আসনের সবকটিই ফিলআপ হয়ে গেছে। আর ব্যবসা শিক্ষা শাখায় ভর্তি হয়েছে প্রায় ৩০ জন।

মাহবুব খান বাবুল

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here