সরাইলে বটগাছে ঝুলন্ত অবস্থায় সোহরাব মিয়া (৩৫) নামের এক যুবকের লাশ উদ্ধার করেছে সরাইল থানা পুলিশ। আজ সোমবার সকালে সরাইল-নাসিরনগর-লাখাই-আঞ্চলিক মহাসড়কের পূর্বপাশে সরাইলের কুট্রাপাড়া এলাকায় একটি কবরস্থান থেকে লাশটি উদ্ধার করা হয়েছে। নিহত যুবক বাড়ি নবীনগর উপজেলার রসুল্লাবাদ ইউনিয়নের কালঘর গ্রামের জাহাঙ্গীর মিয়ার ছেলে। পরিবারে লোকজন বলছেন সোহরাব মানসিক রোগী। পুলিশ ও স্থানীয় সূত্র জানায়, আজ সোমবার ভোরে ফসলি জমি দেখতে মাঠে যান জনৈক কৃষক। ওই কবরস্থানের বটগাছে মানুষ ঝুলতে দেখে প্রথমে ভয় পেয়ে যান। পরে কাছে গিয়ে দেখেন জিন্সের প্যান্ট ও একটি গরম কাপড়ের ফুলহাতা গেঞ্জী পড়া এক যুবকের লাশ ঝুলছে। উপরের একটি ডালে রশি বেঁধে গলায় ফাঁস লাগানো। জিহবাও বেরিয়ে আছে। গাছের নীচে এক জোড়া সেন্ডেল ও একটি ব্যাগ পড়ে আছে। বিষয়টি পুলিশকে অবহিত করেন। মূহুর্তের মধ্যে খবর ছড়িয়ে পড়লে উৎসুক লোকজন ভীড় জমায়। পুলিশ এসে ব্যাগে থাকা জন্ম নিবন্ধনের সহায়তায় নিহতে ঠিকানার সন্ধান পায়। মুঠোফোনে জানালে সকাল সাড়ে ১১টার দিকে নিহতের মা সহ তার স্বজনরা আসেন। এরপর পুলিশ যুবকের ঝুলন্ত লাশ গাছ থেকে নামিয়ে থানায় নিয়ে আসেন। ঘটনাটি আত্মহত্যা নাকি খুন তা নিশ্চিত বলতে পারছেন না কেউ। লাশ উদ্ধারের পর ময়না তদন্তের জন্য জেলা সদর হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে। নিহত যুবকের মা তাছলিমা বেগম বলেন, সোহরাব বেকারিতে কাজ করতে। বিয়ে করেনি। মানসিক সমস্যা রয়েছে। আগেও কয়েকবার বাড়ি থেকে বের হয়ে ঘুরে ফিরে বাড়িতে গিয়েছে। গত শুক্রবার টিকা দেওয়ার কথা বের হয়ে আর ফিরেনি। সরাইল থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মো. আসলাম হোসেন বলেন, জন্ম নিবন্ধনের সূত্র ধরেই নিহতের ঠিকানা ও পরিবারের সন্ধান পেয়েছি। সোহরাবের মা ও প্রতিবেশীরা লাশ সনাক্ত করেছেন। ময়না তদন্তের জন্য লাশটি জেলা সদরে পাঠানো হয়েছে। নিহতের মা বলছেন তার ছেলে মানসিক রোগী।

মাহবুব খান বাবুল

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here