Dhaka 8:06 am, Sunday, 23 June 2024
News Title :
ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় বৃক্ষরোপণ ও বিতরণ করেছে জেলা আওয়ামী লীগ ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় ফ্রি মেডিক্যাল ক্যাম্পে ১ হাজার মানুষকে চিকিৎসা সেবা প্রদান টাউনখাল কচুরিপানা পরিস্কার পরিছন্নতা অভিযানে তরী বাংলাদেশের বড়াইল হোসাইনিয়া উচ্চ বিদ্যালয়ের ৯৭ ব্যাচের মিলন মেলা ফাঁসাতে গিয়ে ফেঁসে গেলেন মামলার বাদী, ইউপি সদস্যসহ ৫ জন কারাগারে ব্রাহ্মণবাড়িয়া রেড ক্রিসেন্ট ইউনিট গরু কোরবানী করে দরিদ্রদের মাঝে মাংশ বিতরণ অপরিকল্পিতভাবে জলাধার ভরাট করায় লক্ষাধিক লোক পানিবন্দী আবেশের উদ্যোগে এসএসসি পরীক্ষায় জিপিএ ৫ প্রাপ্ত ও মেধাবী শিক্ষার্থীদের সংবর্ধনা প্রদান মেধাবী আমেনার বিশ্ববিদ্যালয় ভর্তি স্বপ্নপূরণে এগিয়ে এলেন সাবেক ব্রিটিশ সেনা শওকত আজাদ ব্রাহ্মণবাড়িয়ায়“ভূমি সেবা সপ্তাহ-২০২৪” এর উদ্বোধন

দাঙ্গা ভুলে শান্তির দাবীতে সরাইলে শিশু শিক্ষার্থীদের মানববন্ধন

  • Reporter Name
  • Update Time : 01:31:02 pm, Saturday, 18 May 2024
  • 29 Time View

দাঙ্গা ভুলে শান্তির দাবীতে সরাইলে শিশু শিক্ষার্থীদের মানববন্ধন

দাঙ্গা ভুলে গ্রামে শান্তি প্রতিষ্ঠার দাবীতে ব্রাহ্মণবাড়িয়ার সরাইলে বিলবোর্ড হাতে রাস্তায় দাঁড়িয়ে মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করেছে শিশু শিক্ষার্থীরা। গতকাল শুক্রবার সকালে উপজেলার পাকশিমুল ইউনিয়নের পরমানন্দপুর গ্রামের সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ে পড়ুয়া একদল শিশু শিক্ষার্থী এই কর্মসূচি পালন করেছে। সূত্র জানায়, উপজেলার পল্লী এলাকা পাকশিমুল ইউনিয়নের পরমানন্দপুর গ্রামে দীর্ঘদিন ধরে গোষ্ঠীগত দ্বদ্ধ চলে আসছিল। একাধিকবার হামলা সংঘর্ষ ভাংচুর ও মামলার ঘটনাও ঘটেছে। রাত দিন ২৪ ঘন্টাই একটা উদ্বেগ উৎকন্ঠার মধ্যে থাকতো গ্রামবাসী। এই বুঝি দুই গোত্রের লোকজন সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়লো। সতর্ক দৃষ্টি থাকতো পুলিশ প্রশাসনেরও। তারপর গত ১৮ এপ্রিল বৃহস্পতিবার সকালে একটি খাস জায়গার দখলকে কেন্দ্র দু’দল গ্রামবাসী রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে। উভয় পক্ষে সহস্রাধিক নারী পুরূষ দেশীয় অস্ত্রে সজ্জিত হয়ে সংঘর্ষে যোগ দেয়। আহত হয় শতাধিক নারী পুরূষ। পুলিশ গ্রেপ্তার করেন ২০ জনকে। পরে কয়েকশত লোককে আসামী করে পুলিশ মামলা করে দেন। গ্রেপ্তার এড়াতে নারী পুরূষ গ্রাম ছেড়ে অন্যত্র চলে যায়। গ্রামে বৃদ্ধ অসুস্থ্য ও শিশুরা ছাড়া আর কাউকে খুব একটা চোখে পড়ে না। মাঝে মধ্যে পুলিশ হানা দেয়। ২-৪ জনকে ধরে আনেন। এতে করে আতঙ্কে গোটা গ্রামেই এখন বিরাজ করছে ভূতুড়ে অবস্থা। একটি মাধ্যমিক ও দু’টি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে শিক্ষার্থীর উপসি’তি পূর্বের তুলনায় অনেক কমে গেছে। বিষয়টি ওই গ্রামের শিশু শিক্ষার্থীদের মনে দাগ কেটেছে। তারা অনেক ভেবে চিন্তে গতকাল সাদা কাগজে লেখা বিলবোর্ড নিয়ে গ্রামীণ রাস্তায় দাঁড়িয়ে মানববন্ধন করেছে। তাদের বিল বোর্ডে লিখা ছিল, ‘দাঙ্গা নয়, শান্তি চাই’, ‘ডো নট কোয়ারেল’, ‘দল বেঁধে স্কুলে যেতে চাই’,-এমন সব কথা লিখা বিল বোর্ড ওই কোমলমতি শিশু শিক্ষার্থীরা রাস্তায় দাঁড়িয়েছিল। শিশু শিক্ষার্থীরা বলে, ঘরে বাবা নেই, ভাই নেই। মা ও লুকিয়ে থাকেন। স্কুলে শিক্ষার্থী নেই। বিকেলে ইচ্ছেমত খেলতে পারছি না। এই ভাবে আর ভাল লাগছে না। আমরা ঝগড়া চাই না। সকলে মিলে গ্রামে শান্তি এনে দেন। সকল মানুষকে গ্রামে এনে দেন। অরূয়াইল আব্দুস সাত্তার ডিগ্রী কলেজের প্রভাষক মো. এলাই মিয়া বলেন, ওই শিশুদের আকুতি ও মনের চাওয়া আমাদের বুঝতে হবে। তাদের চাওয়াটাকে পাওয়ায় পরিণত করতে কাজ করতে হবে। শিশুরা শান্তি চাই। গ্রামের সকল সর্দার মাতাব্বরকে মন খুলে শান্তি প্রতিষ্টার জন্য ঝাঁপিয়ে পড়তে হবে। প্রয়োজনে পাশের গ্রামের লোকজনকে কাজে লাগিয়ে শান্তি প্রতিষ্ঠা করতে হবে। কারণ এই গ্রামের আগামী দিনের ভবিষ্যৎ শিশুরা কিন’ বন্দি জীবনে ছটফট করছে। তাদেরকে দেশীয় অস্ত্র নয়, শিক্ষার আলোতে আলোকিত করে গড়ে তুলতে হবে। সেই দাঙ্গা হাঙ্গামাকে চিরতরে ‘না’ বলতে হবে।

Tag :

Write Your Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Save Your Email and Others Information

About Author Information

জনপ্রিয় খবর

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় বৃক্ষরোপণ ও বিতরণ করেছে জেলা আওয়ামী লীগ

fapjunk
© All rights reserved ©
Theme Developed BY XYZ IT SOLUTION

দাঙ্গা ভুলে শান্তির দাবীতে সরাইলে শিশু শিক্ষার্থীদের মানববন্ধন

Update Time : 01:31:02 pm, Saturday, 18 May 2024

দাঙ্গা ভুলে গ্রামে শান্তি প্রতিষ্ঠার দাবীতে ব্রাহ্মণবাড়িয়ার সরাইলে বিলবোর্ড হাতে রাস্তায় দাঁড়িয়ে মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করেছে শিশু শিক্ষার্থীরা। গতকাল শুক্রবার সকালে উপজেলার পাকশিমুল ইউনিয়নের পরমানন্দপুর গ্রামের সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ে পড়ুয়া একদল শিশু শিক্ষার্থী এই কর্মসূচি পালন করেছে। সূত্র জানায়, উপজেলার পল্লী এলাকা পাকশিমুল ইউনিয়নের পরমানন্দপুর গ্রামে দীর্ঘদিন ধরে গোষ্ঠীগত দ্বদ্ধ চলে আসছিল। একাধিকবার হামলা সংঘর্ষ ভাংচুর ও মামলার ঘটনাও ঘটেছে। রাত দিন ২৪ ঘন্টাই একটা উদ্বেগ উৎকন্ঠার মধ্যে থাকতো গ্রামবাসী। এই বুঝি দুই গোত্রের লোকজন সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়লো। সতর্ক দৃষ্টি থাকতো পুলিশ প্রশাসনেরও। তারপর গত ১৮ এপ্রিল বৃহস্পতিবার সকালে একটি খাস জায়গার দখলকে কেন্দ্র দু’দল গ্রামবাসী রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে। উভয় পক্ষে সহস্রাধিক নারী পুরূষ দেশীয় অস্ত্রে সজ্জিত হয়ে সংঘর্ষে যোগ দেয়। আহত হয় শতাধিক নারী পুরূষ। পুলিশ গ্রেপ্তার করেন ২০ জনকে। পরে কয়েকশত লোককে আসামী করে পুলিশ মামলা করে দেন। গ্রেপ্তার এড়াতে নারী পুরূষ গ্রাম ছেড়ে অন্যত্র চলে যায়। গ্রামে বৃদ্ধ অসুস্থ্য ও শিশুরা ছাড়া আর কাউকে খুব একটা চোখে পড়ে না। মাঝে মধ্যে পুলিশ হানা দেয়। ২-৪ জনকে ধরে আনেন। এতে করে আতঙ্কে গোটা গ্রামেই এখন বিরাজ করছে ভূতুড়ে অবস্থা। একটি মাধ্যমিক ও দু’টি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে শিক্ষার্থীর উপসি’তি পূর্বের তুলনায় অনেক কমে গেছে। বিষয়টি ওই গ্রামের শিশু শিক্ষার্থীদের মনে দাগ কেটেছে। তারা অনেক ভেবে চিন্তে গতকাল সাদা কাগজে লেখা বিলবোর্ড নিয়ে গ্রামীণ রাস্তায় দাঁড়িয়ে মানববন্ধন করেছে। তাদের বিল বোর্ডে লিখা ছিল, ‘দাঙ্গা নয়, শান্তি চাই’, ‘ডো নট কোয়ারেল’, ‘দল বেঁধে স্কুলে যেতে চাই’,-এমন সব কথা লিখা বিল বোর্ড ওই কোমলমতি শিশু শিক্ষার্থীরা রাস্তায় দাঁড়িয়েছিল। শিশু শিক্ষার্থীরা বলে, ঘরে বাবা নেই, ভাই নেই। মা ও লুকিয়ে থাকেন। স্কুলে শিক্ষার্থী নেই। বিকেলে ইচ্ছেমত খেলতে পারছি না। এই ভাবে আর ভাল লাগছে না। আমরা ঝগড়া চাই না। সকলে মিলে গ্রামে শান্তি এনে দেন। সকল মানুষকে গ্রামে এনে দেন। অরূয়াইল আব্দুস সাত্তার ডিগ্রী কলেজের প্রভাষক মো. এলাই মিয়া বলেন, ওই শিশুদের আকুতি ও মনের চাওয়া আমাদের বুঝতে হবে। তাদের চাওয়াটাকে পাওয়ায় পরিণত করতে কাজ করতে হবে। শিশুরা শান্তি চাই। গ্রামের সকল সর্দার মাতাব্বরকে মন খুলে শান্তি প্রতিষ্টার জন্য ঝাঁপিয়ে পড়তে হবে। প্রয়োজনে পাশের গ্রামের লোকজনকে কাজে লাগিয়ে শান্তি প্রতিষ্ঠা করতে হবে। কারণ এই গ্রামের আগামী দিনের ভবিষ্যৎ শিশুরা কিন’ বন্দি জীবনে ছটফট করছে। তাদেরকে দেশীয় অস্ত্র নয়, শিক্ষার আলোতে আলোকিত করে গড়ে তুলতে হবে। সেই দাঙ্গা হাঙ্গামাকে চিরতরে ‘না’ বলতে হবে।