স্বাস্থ্য

ডাঃ মুহিব্বর রহমান রাফে

কাঁধের ব্যথাঃ
কাঁধের ব্যথা নির্দেশ করে কোনো আঘাত,স্ট্রেইন বা অন্য কোন অসুখকে।এই ব্যথা শুরু হয় সোল্ডার জয়েন্ট বা পেশী, টেন্ডন, লিগামেন্টের চারপাশের অঞ্চল।পেট বা বুকের গঠনের ওপর এই ব্যথার প্রভাব আছে। গল ব্লাডার বা হার্ট-এর অসুখে কাঁধের ব্যথা দেখা যায়।

কাঁধের ব্যথার কারনঃ

টেনডন ইনফ্লামেসান। খেলোয়াড় মধ্যে এই সমস্যা বেশি দেখা যায়।
সোল্ডার ইন্সটেবিলিটি।
আর্থ্রাইটিস
ফ্রাকচার
আডহেসিভ ক্যাপ্সুলাইটিস বা ফ্রোজেন শোল্ডার।
মায়োফেসিয়াল পেইন সিন্ড্রোম।
শোল্ডার কনটিউসান এবং স্ট্রেইন।

যারা দীর্ঘদিন ধরে ডায়াবেটিক পেশেন্ট অথবা যাদের ডায়াবেটিস যথাযথ নিয়ন্ত্রণ হচ্ছেনা তাদের সোল্ডার জয়েন হয়ে যাওয়া খুবই পরিচিত একটি সমস্যা। একটি ফ্রোজেন শোল্ডার নামে পরিচিত।এছাড়া হূদরোগ স্ট্রোক দীর্ঘদিন স্টেরয়েড ওষুধ ব্যবহার আঘাতজনিত কারণ অথবা জয়েন্ট এর স্বল্প ব্যবহারেও এ সমস্যা দেখা দিতে পারে।

সাবধানতাঃ

কাঁধের অত্যধিক ব্যবহার কমানো, সঠিক বডি মেকানিজম্, ওয়ার্ম আপ, পস্চার, স্ট্রেচ।

চিকিৎসাঃ

কাঁধের বিশ্রাম বা যে কারনে ব্যথা বাড়ে তা কম করা।ব্যাথার জায়গায় গরম বা ঠান্ডা দেওয়া যেতে পারে।

অ্যানালজেসিক জাতীয় ওষুধ ব্যথা নিবারনের জন্য এবং নন স্ট্রেরয়ডাল ওষুধ ব্যথা কমানোর প্রয়োগ করা হয়। 
কোন ইনফেকশন থেকে ব্যথা হলে এ্যান্টিবায়োটিক দিতে হতে পারে।

সোল্ডার পেইন এ স্টেট স্টেরয়েড/ কর্টিসান ইঞ্জেক্সান দেওয়া যায়।

ব্যথা এবং প্রদাহ কমানোর জন্য ফিজিক্যাল থেরাপি অত্যন্ত জরুরি। থারমোথেরাপিসহ বিশেষ করে ফ্রোজেন শোল্ডার এ নির্দিষ্ট ধরনের এক্সারসাইজ নিয়মিত না করলে দীর্ঘমেয়াদি সুফল পাওয়ার সম্ভাবনা কমে যায়।কিছু কিছু ক্ষেত্রে সার্জারির দরকার হয়। যাকে বলে আথ্রোপ্লাস্টি বলা হয়।

মায়োফেসিয়ালের সিনড্রোমের রোগী ফ্রোজেন শোল্ডার এর মত একই ধরনের উপসর্গ নিয়ে আসতে পারেন। অথচ এর চিকিৎসা পদ্ধতির আবার আলাদা। এসব কেন্দ্রে PRT, DTFM, ম্যানিপুলেশন, ড্রাই নিডেলিংসহ আরো অনেক ধরনের চিকিৎসা পদ্ধতি কার্যকর হতে পারে।

নানা অত্যাধুনিক চিকিৎসা পদ্ধতির প্রয়োগ শুরু হয়েছে যা অনেক কম ঝুঁকির, কম খরচের এবং অনেক বেশি নিখুঁত ।

এখন কাঁধের ইঞ্জেক্সন হয় আলট্রাসনোগ্রাফি-র সাহায্যে অথবা সি-আরম এক্সরে মেশিন -এর সাহায্যে। স্টেরয়েড ছাড়াও হাইড্রো ডায়ালেটেশন এর মাধ্যমে জয়েন্টের ভেতরে স্পেস বাড়ানো, প্লাটিলেট রিচ প্লাজমা ইঞ্জেকশন ও রেডিওফ্রিকোয়েন্সি দ্বারা চিকিৎসা হয়। এই চিকিৎসা কাঁধের ব্যথা পুরোপুরি সারিয়ে তোলে ।

সবচাইতে গুরুত্বপূর্ণ হচ্ছে তাদের ব্যথার কারণটি নির্ণয় করা। সঠিক রোগ নির্ণয় করে চিকিৎসার প্ল্যান তৈরি করে জন্য ফিজিক্যাল মেডিসিন বিশেষজ্ঞ আপনাকে সহযোগিতা করতে পারেন।

ডা: মুহিব্বুর রহমান রাফে
এমবিবিএস, এমডি
কনসালটেন্ট
ফিজিক্যাল মেডিসিন এন্ড রিহ্যাবিলিটেশন
সরকারি কর্মচারী হাসপাতাল, ঢাকা।

শিরোনাম