😩😫মায়োফেসিয়াল পেইন সিনড্রোম: ঘোড়ার ডিমের🥚 এক ভুতুড়ে ব্যথা👻। একাডেমিক ডিসকাশন ৩(১):

0

অদ্ভুত হলেও এটাই সত্য,সব ঘাড়ের ব্যথার উৎস সারভাইক্যাল স্পাইন নয়, সব কাঁধের ব্যথা ফ্রোজেন শোল্ডার নয় আর সব কোমরের ব্যথা মানেই মেরুদন্ডের সমস্যা নয়।

😢ঘাড়ের ব্যথা, কাঁধের ব্যথা অথবা কোমর ব্যথার সোর্স যখন খুঁজে পাওয়া যায় না,
😥যে ব্যথা এক্সরে এম আর আই তে ধরা পড়ে না,
😓সকল ইনভেস্টিগেশন নরমাল খুঁজে পাওয়া যায়,
🤔বাতজনিত কিংবা ফাইব্রোমায়ালজিয়া দাবী করা যায় না,
😵অথচ দিনের পর দিন ব্যথা ব্যথা বলে চিৎকার করে অপ্রয়োজনীয়’ ব্যাথার ঔষধ খেতে হয়, আশেপাশের লোকজনের কাছে বিরক্তিকর প্রাণীতে পরিণত হতে হয়, মানসিক রোগী বলে হেয় হতে হয়, সেটাই হয়তো মায়োফেসিয়াল পেইন সিনড্রোম।

🔶#সমস্যাটা_যেমন-
🔹নির্দিষ্ট একটি জায়গায় ব্যথাটা পরম আনন্দে বাস করতে থাকবে।
🔹সেই স্থানে চাপ দিলে সে হালুম করে উঠবে।
🔹ব্যথার উপরের মাংসপেশীগুলো শক্ত হয়ে থাকবে।
🔹কারণ ছাড়াই সে স্থানের মাংসপেশি দুর্বল মনে হবে।
ব্যথার স্থানে চাপ দিলেও আশেপাশে ছড়িয়ে পড়ছে বলে মনে হবে।
🔹ঘাড় নাড়ানো যাচ্ছে না, শোল্ডার নাড়ালেই ব্যথা হচ্ছে, কোমরের অথবা শরীরের নির্দিষ্ট একটি পয়েন্টে বারবার ব্যথা অনুভূত হচ্ছে।

🔶রোগের কারণ কি?
সত্যিকারের কারণ খুঁজে পাওয়া বেশ কঠিন। কখনো কখনো শরীরের অন্য কোন অঙ্গের সমস্যা অথবা কানেক্টিভ টিস্যুর রোগের জন্য হতে পারে। সবচাইতে সাধারণ যে সমস্যার জন্য তৈরি হয় তা হলো কোনো আঘাত অথবা ওভার ইউজ অথবা ওভার স্ট্রেস। হতে পারে কোনো এক্সিডেন্ট কিংবা মোটরবাইক চালনা, হতে পারে ভারী জিনিস বহন, হতে পারে বেকায়দা বসা বা কোন খেলাধুলা জনিত কারণে।

🔶কিভাবে বুঝবেন চিকিৎসক:
এটি পুরোপুরি ক্লিনিক্যাল। রুটিন ও সন্দেহজনক মনে হলে নির্দিষ্ট ইনভেস্টিগেশন করা যেতে পারে ফর এক্সক্লুশন। কারণ সকল ইনভেস্টিগেশন সাধারণত স্বাভাবিক পাওয়া যেতে পারে। নির্দিষ্ট ব্যথার স্থান টিপে টিপে টেন্ডার পয়েন্ট গুলো খুঁজে বের করতে হবে। মাঝেমাঝে রোগী নিজেই হাত দিয়ে জায়গা চিনিয়ে দেন। স্লিপ স্টাডি করেও এটি ডায়াগনোসিস করা যেতে পারে।

🔶ভালো কি হয়?
শতভাগ ভালো হওয়া সম্ভব। যদি মায়োফেসিয়াল হয়ে থাকে। সর্বপ্রথম প্রয়োজন উৎস খুঁজে বের করা। এখনকার আধুনিক চিকিৎসায় পজিশনাল রিলিজ অথবা ডিপ টেন্ডন ফ্রিকশন মেসেজ মুহূর্তে ব্যথা কমিয়ে দিতে পারে। আল্ট্রাসাউন্ড থেরাপি যথেষ্ট সহায়ক।মজার বিষয় হচ্ছে শুধু ব্যথার ওষুধ বা মাসল রিলাক্সেন্ট খেয়ে এটির কোন সমাধান হবে না।
দ্বিতীয় পর্বে এক চাচার গল্প আপনাদের শোনাবো আগামীকাল। (অবশ্যই ভিডিওসহ

😩😫মায়োফেসিয়াল পেইন সিনড্রোম: ঘোড়ার ডিমের🥚 এক ভুতুড়ে ব্যথা👻।
একাডেমিক ডিসকাশন ৩(১):

অদ্ভুত হলেও এটাই সত্য,সব ঘাড়ের ব্যথার উৎস সারভাইক্যাল স্পাইন নয়, সব কাঁধের ব্যথা ফ্রোজেন শোল্ডার নয় আর সব কোমরের ব্যথা মানেই মেরুদন্ডের সমস্যা নয়।

😢ঘাড়ের ব্যথা, কাঁধের ব্যথা অথবা কোমর ব্যথার সোর্স যখন খুঁজে পাওয়া যায় না,
😥যে ব্যথা এক্সরে এম আর আই তে ধরা পড়ে না,
😓সকল ইনভেস্টিগেশন নরমাল খুঁজে পাওয়া যায়,
🤔বাতজনিত কিংবা ফাইব্রোমায়ালজিয়া দাবী করা যায় না,
😵অথচ দিনের পর দিন ব্যথা ব্যথা বলে চিৎকার করে অপ্রয়োজনীয়’ ব্যাথার ঔষধ খেতে হয়, আশেপাশের লোকজনের কাছে বিরক্তিকর প্রাণীতে পরিণত হতে হয়, মানসিক রোগী বলে হেয় হতে হয়, সেটাই হয়তো মায়োফেসিয়াল পেইন সিনড্রোম।

🔶#সমস্যাটা_যেমন-
🔹নির্দিষ্ট একটি জায়গায় ব্যথাটা পরম আনন্দে বাস করতে থাকবে।
🔹সেই স্থানে চাপ দিলে সে হালুম করে উঠবে।
🔹ব্যথার উপরের মাংসপেশীগুলো শক্ত হয়ে থাকবে।
🔹কারণ ছাড়াই সে স্থানের মাংসপেশি দুর্বল মনে হবে।
ব্যথার স্থানে চাপ দিলেও আশেপাশে ছড়িয়ে পড়ছে বলে মনে হবে।
🔹ঘাড় নাড়ানো যাচ্ছে না, শোল্ডার নাড়ালেই ব্যথা হচ্ছে, কোমরের অথবা শরীরের নির্দিষ্ট একটি পয়েন্টে বারবার ব্যথা অনুভূত হচ্ছে।

🔶রোগের কারণ কি?
সত্যিকারের কারণ খুঁজে পাওয়া বেশ কঠিন। কখনো কখনো শরীরের অন্য কোন অঙ্গের সমস্যা অথবা কানেক্টিভ টিস্যুর রোগের জন্য হতে পারে। সবচাইতে সাধারণ যে সমস্যার জন্য তৈরি হয় তা হলো কোনো আঘাত অথবা ওভার ইউজ অথবা ওভার স্ট্রেস। হতে পারে কোনো এক্সিডেন্ট কিংবা মোটরবাইক চালনা, হতে পারে ভারী জিনিস বহন, হতে পারে বেকায়দা বসা বা কোন খেলাধুলা জনিত কারণে।

🔶কিভাবে বুঝবেন চিকিৎসক:
এটি পুরোপুরি ক্লিনিক্যাল। রুটিন ও সন্দেহজনক মনে হলে নির্দিষ্ট ইনভেস্টিগেশন করা যেতে পারে ফর এক্সক্লুশন। কারণ সকল ইনভেস্টিগেশন সাধারণত স্বাভাবিক পাওয়া যেতে পারে। নির্দিষ্ট ব্যথার স্থান টিপে টিপে টেন্ডার পয়েন্ট গুলো খুঁজে বের করতে হবে। মাঝেমাঝে রোগী নিজেই হাত দিয়ে জায়গা চিনিয়ে দেন। স্লিপ স্টাডি করেও এটি ডায়াগনোসিস করা যেতে পারে।

🔶ভালো কি হয়?
শতভাগ ভালো হওয়া সম্ভব। যদি মায়োফেসিয়াল হয়ে থাকে। সর্বপ্রথম প্রয়োজন উৎস খুঁজে বের করা। এখনকার আধুনিক চিকিৎসায় পজিশনাল রিলিজ অথবা ডিপ টেন্ডন ফ্রিকশন মেসেজ মুহূর্তে ব্যথা কমিয়ে দিতে পারে। আল্ট্রাসাউন্ড থেরাপি যথেষ্ট সহায়ক।মজার বিষয় হচ্ছে শুধু ব্যথার ওষুধ বা মাসল রিলাক্সেন্ট খেয়ে এটির কোন সমাধান হবে না।
দ্বিতীয় পর্বে এক চাচার গল্প আপনাদের শোনাবো আগামীকাল। (অবশ্যই ভিডিওসহ)

ডা. মুহিব্বুর রহমান রাফে
কনসালটেন্ট
ফিজিক্যাল মেডিসিন এন্ড রিহ্যাবিলিটেশন
সরকারি কর্মচারী হাসপাতাল, ঢাকা।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে