বৃহস্পতিবার , ২৮শে অক্টোবর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ ,১২ই কার্তিক, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

সড়ক পরিবহন শ্রমীলীগের ১৯তম প্রতিষ্ঠাবাষিকী পালিত

 সড়ক পরিবহন শ্রমীলীগের ১৯তম প্রতিষ্ঠাবাষিকী পালিত

বাংলাদেশ স্বাধীনতার আন্দোলনে শ্রমিকদের ছিলো মুখ্য ভূমিকা
—————- বীর মুক্তিযোদ্ধা আল মামুন সরকার

ডিঃব্রাঃ
বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন শ্রমিকলীগের ১৯তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী অনুষ্ঠিত হয়েছে। গতকাল সোমবার জেলা শিল্পকলা একাডেমি হলে আলোচনা সভায় বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন শ্রমিকলীগের জেলা শাখার সভাপতি বারীন্দ্র নাথ ঘোষের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক , বীর মুক্তিযোদ্ধা আল মামুন সরকার।

প্রধান অতিথির বক্ততায় আল মামুন সরকার বলেন, বাংলাদেশ স্বাধীনতার আন্দোলনে শ্রমিকদের ছিলো মুখ্য ভূমিকা। সেই স্বাধীনতা সংগ্রামের বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ডাকে সারা দিয়ে শ্রমিক ও ছাত্র আন্দোলন গড়ে তোলেছে। ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলায় যখন শ্রমিরা সংঘবদ্ধ ছিলো না তখন তৈরি হয়েছে কোকিল টেক্সটাইল মিল। তখন ২২৫ জন শ্রমিকদের নিয়ে গঠন করা হয়েছে জেলা শ্রমিকলীগ। উত্তরের কোকিল টেক্সটাইল মিলের শ্রমিক ও দক্ষিণ ব্রাহ্মণবাড়িয়া সরকারি কলেজের ছাত্র সমাজ এই দুই ক্ষেত্র নিয়ে ব্রাহ্মণবাড়িয়ার রাজনীতির বিকাশ ঘটে। শ্রমিকগণ পরিশ্রমী ছিলেন ও ছাত্র বিকশিত ছিলেন। কিন্তু এখন রাজনৈতিক প্রেক্ষাপট অনেকটাই ভিন্ন।

আজকে বাংলাদেশ প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সাধারণ জনগণের জন্য দুই হাতে উন্নয়নের জাল বিছিয়ে দিচ্ছে। প্রধানমন্ত্রীর হাত ধরে ২০০৯ সালে থেকে ২০২১ সাল পর্যন্ত বাংলাদেশে অর্থনেতিক দিক দিয়ে আমরা অনেক এগিয়ে এসেছি। করোনা মহামারিরকালে বিগত দেড় বছর যাবৎ অর্থনৈতিক অবস্থা অচল, সেখান বাংলাদেশের অর্থনীতির মেরুদন্ড দাড় করিয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা দেশ পরিচালনা করে আসছেন। আর তার কারণ আমাদের প্রবাসী শ্রমিকগণ। তাদের কারণে আজ বাংলাদেশ ব্যাংকে প্রচুর পরিমারণ রেমিন্সেস জমা হচ্ছে।

তিনি আরো বলেন, বিশ্ব ব্যাংক পদ্মাসেতুর তৈরিতে বাংলাদেশের পাশে দাড়ায় নি। তখন অনেকের কাছেই পদ্ম সেতু নির্মাণের বিষয়টি ছিল অপরিকল্পনীয়। কিন্তু প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার প্রচেষ্টায় আজ পদ্মা সেতু বাংলাদেশ বুকে দৃশ্যমান। শেখ হাসিনা বাংলাদেশের নিজস্ব অর্থায়নে পদ্মাসেতুর নির্মাণ করে পুরো বিশ্বে একটি দৃষ্টান্ত তৈরি করে দেখিয়েছেন।

তবে আজ পুরো বিশ্ব ও বাংলাদেশের যে অগ্রগতি, সেই অগ্রগতি তার মূল কারণ হচ্ছে শ্রমিক। শ্রমিক কখনোই শেষ হবে না। আজ দেশের অগ্রগতির বিশেষ কারণ হচ্ছে যোগযোগ ব্যবস্থা। আর এই যোগযোগ ব্যবস্থার ট্রাক-বাস-সিএনজি রিক্সা যেকোনো পরিবহন শ্রমিকই হোক না কেন তারাই হচ্ছে দেশের শক্তিশালী অবকাঠামো। শ্রমিকগণ কখনোই মালিকদের উপর নির্ভরশীল হবেন না, এমনভাবে কাজ করবেন যেন মালিকরাই আপনাদের উপর নির্ভরশীল হয়। শ্রমিকরা হচ্ছে এমন শক্তি তারা কখনো হাত পাতে না, নিজেদের ভাত যে কোন কর্মেও মাধ্যমে জোগাড় করে নিবেন। তাই আজকে এই দিনে বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন শ্রমিকলীগের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকের সকল শ্রমিকদের সফলতা কামনা করেন।

এ সময় সড়ক পরিবহন শ্রমিকলীগ জেলা শাখার সাধারণ সম্পাদক মিজানুর রহমান তানিমের পরিচালনায় বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন জেলা আওয়ামীলীগের সহ-সভাপতি মুজিবুর রহমান বাবুল, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক গোলাম মহিউদ্দিন খান খোকন, সাংগঠনিক সম্পাদক এড. মাহবুবুল আলম খোকন, জাতীয় শ্রমিকলীগের জেলা শাখার ভারপ্রাপ্ত সভাপতি আলাল উদ্দিন আলালম সাধারণ সম্পাদক এম.এ মালেক চৌধুরী। এ সময় অনন্যাদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন সদর উপজেলা সড়ক পরিবহন শ্রমিকলীগের সভাপতি শাহ মোঃ আমিন, সাধারণ সম্পাদক মোঃ জাহাংগির আলম, পৌর শাখার সভাপতি মো জাজ্ঞীর আলম,সাধারণ সম্পাদক মোঃ রাজিব আহমেদ, সরাইল উপজেলা সভাপতি শেখ আবু কালাম, সাধারণ সম্পাদক রাজন সর্দার, আশুগঞ্জে উপজেলা সভাপতি কামাল মুন্সি,সাধারণ সম্পাদক ইদন মিয়া, বিশ্ব রোড় মোড় শাখা সভাপতি আতিকুর রহমান, সাধারণ সম্পাদক আরব আলি, সুহিলপুর ইউনিয়ন সভাপতি গোলাম খাদেম, সাধারণ সম্পাদক হাজি রিংকু, মজলিশপুর ইউনিয়ন শাখা সভাপতি হাজি মোঃ ইকবাল, সাধারণ সম্পাদক ইলিয়াস মিয়া, বুদল ইউনিয়ন শাখা সভাপতি কামাল মিয়া, সাধারণ সম্পাদক কালাল মিয়া প্রমুখ ।

পরিশেষে অনুষ্ঠানের অতিথিদের ফুল দিয়ে অভিভাদন জানিয়ে কেক কাটার মাধ্যমে অনুষ্ঠানের সমাপ্তি ঘোষণা করেন।

//প্রেস বিজ্ঞপ্তি//

digital

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *