সোমবার , ২০শে সেপ্টেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ ,৫ই আশ্বিন, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

স্থগিত হয়নি মামুনুল হকের মাহফিল,বক্তব্য দিয়ে গেছেন হাজার হাজার মানুষের উপস্থিতিতে

 স্থগিত হয়নি মামুনুল হকের মাহফিল,বক্তব্য দিয়ে গেছেন হাজার হাজার মানুষের উপস্থিতিতে

ডিঃব্রাঃ ডেস্কঃ
ব্রাহ্মণবাড়িয়ার কসবায় এসে বক্তব্য রেখে গেছে আল্লামা মুহাম্মদ মামুনুল হক (দা. বা)। শনিবার রাতে উপজেলার শ্যামবাড়ি এলাকায় হাজার হাজার মানুষের উপস্থিতিতে তিনি বক্তব্য রাখেন। সেখানে তিনি স্বভাবসুলভ বক্তব্যই রাখেন। এর আগে উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান অ্যাডভোকেট রাশেদুল কায়সার ভূইয়া জীবনের হস্তক্ষেপে আল্লামা মুহাম্মদ মামুনুল হক (দা. বা) এর অনুষ্ঠান স্থগিত করা হয়েছে বলে বিভ্রান্ত সৃষ্টি করা হয়। মামুনুল হক না আসার তথ্য জানানোর পর কিছু মিডিয়াতেও বিষয়টি প্রকাশিত হয়। তবে এমন তথ্য প্রচারের পরও মামুনুল হক আসায় বিষয়টি নিয়ে সমালোচনার সৃষ্টি হয়েছে।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, বাদৈর ছাত্র ওলামা ইসলামী সেবা পরিষদ ২০ মার্চ সকাল ১০টা ঈদগাহ মাঠে শানে রিসালাত (সা.) সম্মেলনের আয়োজন করেছে। এতে উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম আহবায়ক রাশেদুল কায়সারকে প্রধান অতিথি করা হয়। আলোচক হিসেবে থাকার কথা বলা হয় মামুনুল হকের। এ সংক্রান্ত পোস্টারও কসবার বিভিন্ন এলাকা ছেয়ে যায়। এতে এলাকার মানুষের মাঝে তীব্র প্রতিক্রিয়া দেখা দেয়। নানা কারণে আলোচিত সমালোচিত মামুনুল হক উপস্থিত থাকবেন- এমন অনুষ্ঠানে আওয়ামী লীগ নেতার প্রধান অতিথি থাকাটা এলাকার সুধীজনেরা ভালো চোখে দেখেন নি। এ বিষয়ে উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান অ্যাডভোকেট রাশেদুল কায়সার ভূইয়া জীবন জানান পোস্টারে প্রধান অতিথি হিসেবে আমার নাম কে দিয়েছে আমি তা জানিনা। লোক মারফত বিষয়টি জানতে পেরে আয়োজকদের সঙ্গে কথা বলে সেটা বাতিল করেছি।

এদিকে বিতর্কের মুখে আয়োজকদের নিয়ে উপজেলা চেয়ারম্যানসহ প্রশাসনের লোকজন বৈঠক করেন। বৈঠকের পর জানানো হয় ওই অনুষ্ঠান স্থগিত করা হয়েছে। বিষয়টি গণমাধ্যম কর্মীদেরকেও অবহিত করা হয়। পরে অনুষ্ঠান স্থগিত নিয়ে খবর প্রকাশিত হয়। এরই মধ্যে শনিবার রাতে উপজেলার শ্যামবাড়ি গ্রামে আসেন মামুনুল হক। সেখানে তিনি স্বভাব সুলভ বক্তব্য রাখেন। মামুনুল হক আসার আগে বলা হয়, যদি কোনো বাধা দেয়া হয় তাহলে প্রতিরোধ গড়ে তোলা হবে। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক স্থানীয় একাধিক ব্যক্তি বলেন, মূলত সমালোচনার মুখে অনুষ্ঠানটি এক জায়গা থেকে আরেক জায়গায় নেয়া হয়। আয়োজক ও সমালোচনার মুখে পড়া সংশ্লিষ্টরা কৌশলে সমঝোতা করে অনুষ্ঠানটি সফল করেছেন।

কসবা থানার অফিসার ইনচার্জ জানান এলাকাবাসীর আপত্তির প্রেক্ষিতে বাদৈর গ্রামের প্রোগ্রামটি বাতিল করা হলেও শ্যামবাড়িতে কোন আপত্তি ছিল না। তাই মাওলানা মামুনুল হক সেখানে বক্তব্য রাখেন।

digital

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *