বুধবার , ৩রা মার্চ, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ ,১৮ই ফাল্গুন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

সর্বস্তরের মানুষের শ্রদ্ধা, ভালোবাসায় চিরশায়িত হলেন সর্বজন শ্রদ্ধেয় প্রফেসর আবদুন নূর।

 সর্বস্তরের মানুষের শ্রদ্ধা, ভালোবাসায় চিরশায়িত হলেন সর্বজন শ্রদ্ধেয় প্রফেসর আবদুন নূর।


মনিরুল ইসলাম শ্রাবণঃ
ব্রাহ্মণবাড়িয়ার সর্বজন শ্রদ্ধেয় শিক্ষাবিদ, ব্রাহ্মণবাড়িয়া সরকারি কলেজের সাবেক অধ্যক্ষ প্রফেসর আবদুন নূর গতকাল ভোর পাঁচটায় ইন্তেকাল করেছেন। ইন্নালিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন। মৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছিল ৭১ বছর। ব্রাহ্মণবাড়িয়ার নবীনগরের বিটঘর গ্রামে জন্ম এই কৃর্তিমান পুরুষের। আজীবন ছিলেন জ্ঞানতাপস। ঢাকা বিশ্ব বিদ্যালয় থেকে ইংরেজি সাহিত্যে অনার্স ও মাস্টার্স ডিগ্রি অর্জন করার পর শিক্ষকতাকে পেশা হিসেবে নিয়েছিলেন এই ক্ষণজন্মা মহাপুরুষ। দেশের বিভিন্ন জেলায় শিক্ষকতা শেষে দায়িত্ব নিয়েছিলেন ব্রাহ্মণবাড়িয়া সরকারি কলেজের ইংরেজি বিভাগের বিভাগীয় প্রধান হিসেবে। দীর্ঘদিন কাজ করেছেন এখান থেকেই। অধ্যাপনার পাশাপাশি বিশ্ব সাহিত্য কেন্দ্র, ব্রাহ্মণবাড়িয়া সরকারি কলেজের অন্যতম প্রতিষ্ঠাতা ও সংগঠক ছিলেন তিনি। এর মাধ্যমে তিনি তৈরি করেছেন অসংখ্য ছাত্র ও সংগঠককে।

এছাড়াও শিল্প-সাহিত্য-সংস্কৃতিতে তাঁর অসামান্য অবদান রয়েছে। বিভিন্ন জাতীয় ও স্থানীয় পত্রিকায় প্রফেসর আবদুন নূররের লেখা বিভিন্ন গল্প, উপন্যাস, প্রবন্ধ ও অনুবাদ সাহিত্য নিয়মিত প্রকাশিত হয়েছে। প্রকাশিত হয়েছে বেশ কয়েকটি বই। এ ছাড়াও মঞ্চ নাটকে তিনি ছিলেন সিদ্ধহস্ত। অনেক নাটক রচনা করেছেন, নির্দেশনা দিয়েছেন। নিজেও করেছিলেন সুনিপূণ অভিনয়। একজন সুবক্তা হিসেবেও তার সুখ্যাতি ছিল সারা দেশ জুড়ে।

গতকাল তার মৃত্যু সংবাদ শুনে পুরো শহরে শোকের ছায়া নেমে আসে। একে একে আত্মীয় সহকর্মী, ছাত্র-শিক্ষক,ভক্ত-অনুরাগী ও এলাকাবাসীরা ভিড় জমাতে থাকে মরহুমের বাসায়। বাদ জোহর তার প্রিয় প্রতিষ্ঠান ব্রাহ্মণবাড়িয়া সরকারি কলেজ মাঠে জানাজা নামাজ অনুষ্ঠিত হয়। জানামাজের প্রাক্কালে স্মৃতিচারণ করে শোকানুভূতি ব্যক্ত করেন বিভিন্ন বিশিষ্ট ব্যক্তিবর্গ।

বাংলাদেশ আবৃত্তি সমন্বয় পরিষদের সাংগঠনিক সম্পাদক সাংবাদিক মনির হোসেন এর পরিচালনায় সংক্ষিপ্ত আকারে বক্তব্য রাখেন ব্রাহ্মণবাড়িয়া সরকারি কলেজের অধ্যক্ষ প্রফেসর মোহাম্মদ হানিফ, ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান লায়ন ফিরোজুর রহমান ওলিও, ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা বিএনপির সাবেক সভাপতি ও সাবেক পৌর মেয়র হাফিজুর রহমান মোল্লা কচি, ব্রাহ্মণবাড়িয়া সরকারি কলেজের সাবেক অধ্যক্ষ এবং মরহুমের দীর্ঘদিনের সহকর্মী প্রফেসর মুজিবুর রহমান, জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সম্পাদক গোলাম মহিউদ্দিন খান খোকন, ব্রাহ্মণবাড়িয়া কেন্দ্রীয় সমবায় ব্যাংকের চেয়ারম্যান এইচ.এম মাহবুবুল আলম, সদর উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান অ্যাডঃ লোকমান হোসেন, জেলা শিল্পকলা একাডেমির সাধারণ সম্পাদক এস আর এম ওসমান গণী সজিব, জেলা বিএনপির সাবেক যুগ্ম সম্পাদক, সাবেক ভিপি অ্যাডঃ আনিসুর রহমান মঞ্জু, শহর আওয়ামীলীগের সহ-সভাপতি মোঃ জামাল খান, নবীনগর এলাকাবাসীর পক্ষে মোঃ জালাল আহমেদ, মোঃ ইয়াকুব আলী প্রমুখ।

জানাজার নামাজের পর মরহুমের কফিনে ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর আসনের মাননীয় সংসদ সদস্য র.আ.ম উবায়দুল মোকতাদির চৌধুরীর পক্ষে ফুল শ্রদ্ধা জ্ঞাপন করা হয়। এছাড়াও ফুলেল শ্রদ্ধা জ্ঞাপন করেন শিক্ষক পরিষদ ব্রাহ্মণবাড়িয়া সরকারি কলেজ, বিশ্ব সাহিত্য কেন্দ্র, ব্রাহ্মণবাড়িয়া ও ব্রাহ্মণবাড়িয়া ইংলিশ এ্যালমনাই অ্যাসোসিয়েশন। পরে মোড়াইল কবরস’ানে মরহুমের একমাত্র ছেলে কনকের কবরের পাশে তাঁকে দাফন করা হয়। প্রায় কয়েকশত লোক জানাজা নামজে অংশ গ্রহন করেন। মৃত্য কালে তিনি স্ত্রী, কন্যা-জামাতা সহ অসংখ্য গুণগ্রাহী রেখে গিয়েছেন।………ডিঃব্রাঃ

digital

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *