শুক্রবার , ১৮ই জুন, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ ,৪ঠা আষাঢ়, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

সরাইল বিএনপি উত্তপ্ত,বিক্ষোভ মিছিল

 সরাইল বিএনপি উত্তপ্ত,বিক্ষোভ মিছিল

মোহাম্মদ মাসুদঃ সরাইলঃ
ব্রাহ্মণবাড়িয়ার সরাইল উপজেলা বিএনপি’র আহবায়ক কমিটিকে অবৈধ দাবী করে বিক্ষোভ মিছিল ও পথসভায় আবারও উত্তপ্ত সরাইল। জেলা বিএনপি’র সদস্য, উপজেলা বিএনপি’র সাবেক সহসভাপতি মো. আক্তার হোসেন ও সাবেক সম্পাদক মো. আনোয়ার হোসেনের নেতৃত্বে আজ মাঠে নামে বিএনপি’র একাংশের নেতা কর্মীরা।

টাকার বিনিময়ে কমিটি দেওয়ার অভিযোগও করেছেন বক্তারা। এ কমিটি বিলুপ্ত না হওয়া পর্যন্ত দিয়েছেন আন্দোলন চালিয়ে যাওয়ার আল্টিমেটাম।
আজ সোমবার সকাল ১১ টায় শহিদ মিনার চত্বরে পথসভা। দলীয় সূত্র ও সরেজমিনে জানা যায়, সরাইলের পূর্ণাঙ্গ কমিটি বিলুপ্তির ২ মাস পর গত ২৬ ফেব্রূয়ারি রাতে ৩১ সদস্যের আহবায়ক কমিটি ঘোষণা করে জেলা বিএনপি। ওই কমিটিতে মো. আনিছুল ইসলাম ঠাকুরকে আহবায়ক ও এডভোকেট নূরূজ্জামান লস্কর তপুকে করা হয় সদস্য সচিব। কমিটি প্রকাশের পরই ক্ষোভ বিরাজ করে বিএনপি’র একাংশে। প্রতিক্রিয়ায় আনোয়ার হোসেন দেন পদত্যাগের ঘোষণা।

সকাল থেকে বিভিন্ন স্তরের দলীয় নেতা কর্মী ও সমর্থকরা সরাইল সদরের বিভিন্ন পয়েন্টে জড়ো হতে থাকে। সকাল ১০টার দিকে পুলিশ আনোয়ার হোসেনের বাড়ির সামনের সড়কে অবস্থান নেয়। সোয়া ১০টার দিকে সেখান থেকে আনোয়ার হোসেন ও জেলা আহবায়ক কমিটির সদস্য আক্তার হোসেনের নেতৃত্বে একটি বিক্ষোভ মিছিল বের হয়। মিছিলে বর্তমান যুবদল ও ছাত্রদলের সাবেক সভাপতি সম্পাদক, বিভিন্ন ইউনিয়নের বিএনপি’র নেতা কর্মীসহ ৫ শতাধিক লোক অংশ গ্রহন করে। আহবায়ক কমিটিকে অবৈধ দাবী করে জেলার আহবায়ক জিল্লুর রহমানের বিরূদ্ধে নানা অশালীন স্লোগান দেয়। প্রধান সড়ক হয়ে মিছিলটি কেন্দ্রীয় শহিদ মিনারে গিয়ে পথ সভায় মিলিত হয়।

আক্তার হোসেনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত পথসভায় বক্তব্য রাখেন- সহসভাপতি মো. আক্তার হোসেন, সম্পাদক আনোয়ার হোসেন, যুগ্ম সম্পাদক আজমল হোসেন ছোটন ও উপজেলা ছাত্রদলের সাবেক সম্পাদক আব্দুল জব্বার।

উপসি’ত ছিলেন-জেলা জিয়া পরিষদের সম্পাদক মোছা. শামীমা আক্তার, মো. মশিউর রহমান, এম কামাল হোসেন, উপজেলা যুবদলের সাবেক সভাপতি নাজমুল আলম খন্দকার মুন্না, সম্পাদক মো. জহিরূল ইসলাম ভূঁইয়া।

বক্তারা বলেন, মোটা অংকের লেনদেনের মাধ্যমে দল ত্যাগী ও বহিস্কৃত নেতাদের দিয়ে করা কমিটি আমরা মানি না। মানব না। আওয়ামী এজেন্টদের এ কমিটিকে আমরা প্রত্যাখ্যান করছি। জেলা কমিটির আহবায়ক জিল্লুর নিজের ইচ্ছামত আইন তৈরী করে নিজের স্বার্থ হাসিল করে কমিটি করছেন। তিনি সরাইলের শান্ত বিএনপিকে অশান্ত করছেন। ২০১৯ খ্রিষ্টাব্দের ১৯ মার্চ আনিছ ঠাকুর দল থেকে পদত্যাগ করেছিলেন। আর তপু ২০১৯ খ্রিষ্টাব্দের ১০ ফেব্রূয়ারি পদত্যাগ ও ১৯ মার্চ দল করেছে বহিস্কার। তাদের নেতৃত্বাধীন কমিটিকে সরাইলে ওঠতে দেয়া হবে না। নাবালকদের দিয়ে গড়া অবৈধ এ কমিটি বাতিল না হওয়া পর্যন্ত আমাদের আন্দোলন অব্যাহত থাকবে।

digital

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *