মঙ্গলবার , ২১শে সেপ্টেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ ,৬ই আশ্বিন, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

সরাইলে মহিলা সংসদ সদস্যের সব অনুষ্ঠান বর্জনের ঘোষণা মুক্তিযোদ্ধাদের

 সরাইলে মহিলা সংসদ সদস্যের সব অনুষ্ঠান বর্জনের ঘোষণা মুক্তিযোদ্ধাদের


মোহাম্মদ মাসুদঃসরাইলঃ
ব্রাহ্মণবাড়িয়ার সরাইল উপজেলার মুক্তিযোদ্ধারা সংরক্ষিত ৩১২ (ব্রাহ্মণবাড়িয়া) মহিলা আসনের সংসদ সদস্য ও উপজেলা আওয়ামীলীগের আহবায়ক কমিটির যুগ্ম আহবায়ক উম্মে ফাতেমা নাজমা বেগম উরফে শিউলি আজাদের সকল অনুষ্ঠান বর্জনের ঘোষণা দিয়েছেন।

গতকাল শনিবার দুপুরে উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদের আয়োজনে উপজেলা পরিষদ মিলনায়তনে নবাগত ইউএনও আরিফুল হক মৃদুলের সঙ্গে স্থানীয় মুক্তিযোদ্ধাদের এক পরিচিতি ও মতবিনিময় সভায় মুক্তিযোদ্ধারা এ ঘোষণা দেন। নতুন করে আবারও যাচাই বাচাই পক্রিয়ার বিরোধীতাও করেছেন। আবার এ সভায় সরাইলের মুক্তিযোদ্ধাদের জন্য একটি কবরস্থানের দাবীর প্রেক্ষিতে তা দ্রূত বাস্তবায়নের আশ্বাস দিয়েছেন উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান।


উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদের সাবেক কমান্ডার ইসমত আলীর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সভায় অন্যান্যের বক্তব্য রাখেন উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান রফিক উদ্দিন ঠাকুর, বাংলাদেশ সংবাদ সংস্থার সাবেক উপপরিচালক মুক্তিযোদ্ধা এম এ মোতালেব, সরাইল থানার ওসি এ এম এম নাজমুল আহমেদ, উপজেলা আওয়ামীলীগের যুগ্ম আহবায়ক এডভোকেট আবদুর রাশেদ, উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদের সাবেক ডেপুটি কমান্ডার আনোয়ার হোসেন, যুদ্ধাহত মুক্তিযোদ্ধা মেজবাহ উদ্দিন, মুক্তিযোদ্ধা কামাল খাঁ, উপজেলা যুবলীগের সাবেক সভাপতি মাহফুজ আলী প্রমুখ।

মুক্তিযোদ্ধারা ক্ষোভের সাথে বলেন, নানা কলাকৌশলে অনেক অমুক্তিযোদ্ধা মুক্তিযোদ্ধার তালিকাভুক্ত হয়েছেন। তারাই আজ প্রকৃত মুক্তিযোদ্ধার তালিকা যাচাই-বাছাই কমিটির মধ্যে অন্তর্ভুক্ত হচ্ছেন। এটি আমাদের জন্য অত্যন্ত অপমানজনক বিষয়। আমাদের শেষ বেলায় যাচাই-বাছাইয়ের নামে চিন্তায় ফেলেছে। রাজাকারের উত্তরসূরিরা আজ সরকারের ভেতরে কৌশলে প্রবেশ করছে। এরাই সরকারকে বেকায়দায় ফেলার জন্য নানা ষড়যন্ত্র করছে। ৭১’ এ বুকে বুলেট নিয়েছি। পরাজিত হয়নি।এখনো রাজাকারের কাছে পরাজিত হব না।

মুক্তিযোদ্ধারা বলেন মহিলা সংসদ সদস্য সরাইলে যাচাই-বাছাই কমিটির সদস্য হিসেবে যার নাম প্রস্তাব করেছেন তিনি একজন অমুক্তিযোদ্ধা এবং তিনি বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের খুনি তাহের উদ্দিন ঠাকুরের আত্মীয়। তিনি কয়েক দিন আগে কৌশলে মুক্তিযোদ্ধার তালিকায় অন্তর্ভুক্ত হয়েছেন। আমারা তাকে মেনে নিতে পারি না। সরাইলের এক অনুষ্ঠানে কয়েকজন মুক্তিযোদ্ধাকে উত্তরীয় পড়াননি। অথচ সম্প্রতি আশুগঞ্জে এক অনুষ্ঠানে জামাতের আমীরকে সংবর্ধনা দিয়েছেন। বিষয়টি একাধিক জাতীয় পত্রিকায় ফলাও করে প্রচার হয়েছে।’

অনুষ্ঠানে মুক্তিযোদ্ধারা সরাইলে যে কোনো অনুষ্ঠানে সাংসদ উম্মে ফাতেমা নাজমা বেগম উপসি’ত থাকলে তা বর্জনের ঘোষণা দেন। এ সময় উপসি’ত মুক্তিযোদ্ধা ও মুক্তিযোদ্ধা পরিবারের সদস্যরা হাত তুলে সাংসদের সব ধরনের অনুষ্ঠান বর্জণের ঘোষণা দেন।
সাবে কমান্ডার ইসমব আলী বলেন সরাইলে মুক্তিযোদ্ধাদের তালিকায় ৩০২ জনের নাম রয়েছে। এর মধ্যে যুদ্ধকালীন সরাইল থানা কমান্ডার আবদুস সালামসহ ৭৭ জনের নাম যাচাই-বাছাই তালিকায় প্রকাশ করা হয়েছে। এ ছাড়া এ ৭৭ জনের মধ্যে ১২ জন ইতিমধ্যে মারা গেছেন। এ তালিকা নিয়ে আমরা বিব্রতকর অবস’ার মধ্যে পড়েছি। বিষয়টি নিয়ে ইউএনওর সঙ্গে মতবিনিময় সভায় আমাদের কথা তুলে ধরেছি।’
ডিঃব্রাঃ

digital

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *