মঙ্গলবার , ২১শে সেপ্টেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ ,৬ই আশ্বিন, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

মৃত্যুর গুজব জড়িয়ে প্রতিপক্ষের বাড়ি ঘরে হামলা, ভাংচুর ও লোটপাট

 মৃত্যুর গুজব জড়িয়ে প্রতিপক্ষের বাড়ি ঘরে হামলা, ভাংচুর ও লোটপাট

ডিঃব্রাঃ ডেস্কঃ
ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর উপজেলার ক্ষুদ্রব্রাহ্মণবাড়িয়া গ্রামে বকসী বাড়িতে মঙ্গলবার সকালে মৃত্যুর গুজব জড়িয়ে প্রতিপক্ষের বাড়ি ঘরে ব্যাপক হামলা ও ভাংচুর এবং লোটপাটের ঘটনা ঘটেছে। স্থানীয় ও প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান প্রবাসে যাওয়ার টাকা ফেরত চাওয়াকে কেন্দ্র করে গত পহেলা আগস্ট রাতে জেলার সদর উপজেলার ক্ষুদ্র ব্রাহ্মণবাড়িয়া গ্রামে বকসি বাড়ির আকতার হোসেন উপর হামলা করে স্থানীয় হামদু মিয়া ও তার সমর্থকরা। এই ঘটনায় ৪ আগস্ট রাতে ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর মডেল থানায় আকতার হোসেনের স্ত্রী মুন্নী আক্তার বাদী একটি মামলা দায়ের করেন।

এই মামলায় পুলিশ কোন আসামী গ্রেপ্তার না করে উল্ট ১২ আগস্ট রাতে হামদু মিয়া স্ত্রী কোহিনূর বেগম বাদী ৯ জনকে আসামী করে একটি কাউন্টার মামলা পুলিশ গ্রহন করে। এরপর আসামীরা প্রকাশ্যে এলাকায় চলে আসে। আকতার হোসেন কেন, থানায় মামলা করল হামদু মিয়া ও তার সমর্থকদের নিয়ে সোমবার সকালে আকতার হোসেনের বাড়িতে অর্তকিত হামলা করে। পরবর্তীতে এই নিয়ে দুই পক্ষের মধ্যে ধাওয়া পাল্টা ঘটনা ঘটে। এতে হামদু মিয়াসহ উভয়পক্ষে ৫/৭ জন আহত হয়।

আহতরা ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেনারেল হাসপাতালসহ বেসরকারি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছে। মঙ্গলবার ভোরে হামদু মিয়া মারা গেছে এই গুজব জড়িয়ে স্থানীয় জয়নল মিয়া, শফিকুল ও কামালের নেতৃত্বে ১৫/২০ আকতার হোসেন তার সমর্থকদের বাড়িতে হামলা, ভাংচুর ও ব্যাপক লোটপাট করে। আকতার হোসেন জানান কোন প্রকার কারন ছাড়াই আমি আমার সমর্থকদের বাড়ি হামলা ভাংচুর ও লুটপাট করা হয়। তাদের দাবি হামদু মিয়া মারা গেছে। অথচ হামদু মিয়া সদর হাসাপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছে। যদিও মঙ্গলবার বিকালে গিয়ে দেখা যায় ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেনারেল হাসপাতালে হামদু মিয়া ভর্তি আছে।

এই ব্যাপারে ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর মডেল থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোহাম্মদ এমরানুল ইসলাম জানান উভয়পক্ষের মামলা আছে। আমরা আসামীদের গ্রেপ্তারে আমাদের অভিযান অব্যাহত আছে।

digital

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *