ভুল চিকিৎসায় স্কুল শিক্ষিকা দিয়ার মৃত্যু খ্রীষ্টিয়ান মেমোরিয়াল হাসপাতালের পরিচালক ডাঃ ডিউক সহ ৩ জনের বিরুদ্ধে মামলা

0

ডিজিটাল ব্রাহ্মণবাড়িয়া॥ ভূল চিকিৎসার মাধ্যমে স্কুল শিক্ষিকা রোগিনীকে মৃত্যুর কোলে ঢেলে দেয়ার ঘটনায় পৌর শহরের মুন্সেফপাড়াস’ খ্রীষ্টীয়ান মেমোরিয়াল হাসপাতালের পরিচালক ডাঃ ডিউক চৌধুরীসহ ৩ ডাক্তারের বিরুদ্ধে গত ১২ নভেম্বর আদালতে কোট পিটিশন মামলা দায়ের করলে আদালত বিষয়টি আমলে নিয়ে সদর মডেল থানার অফিসার ইনচার্জকে এজাহার গণ্যেকরত: পরবর্তী কার্যক্রম গ্রহনের নির্দেশ প্রদান করে।

গতকাল থানায় এজাহার গন্যে হয়েছে। জানা যায়, পৌর শহরের মুন্সেফপাড়া ক্রিসেন্ট কিন্ডার গার্টেন স্কুলের সহকারী শিক্ষিকা ১ কন্যা  সন্তানের জননী নওশীন আহাম্মদ দিয়া গর্ভবতী অবস্তায় গত ৩০ অক্টোবর একই এলাকাধীন খৃীষ্ট্রীয়ান মেমোরিয়াল হাসপাতালে এডভান্স ডেলিভারীর জন্য ভর্তি হয় এবং ঐদিন সিজার অপরাশেনের মাধ্যমে ১টি কন্যা সন-ান  ভূমিষ্ঠ হয়।

এ দিকে রোগীনী পুরোপরি সুস’ না হওয়া সত্বেও তাকে হাসপাতাল থেকে রিলিজ দেয়া হয়। রোগিনীকে পাশ্ববর্তী এলাকায় স্বামীর বাড়ীতে নেয়া হয়। ৪ নভেম্বর ভোর বেলায় রোগিনীর প্রচন্ড মাথা ব্যথা শুরু হলে তাৎক্ষনিক খ্রীষ্ট্রিয়ান মেমোরিয়াল হাসপাতালে নেয়া হয়।

এই সময়ে হাসপাতালের পরিচালক ডাঃ ডিউক চৌধুরী ডাঃ অরুনেশ্বর পাল অভি ও ডাঃ মোঃ শাহাদাত হোসেন রাসেল রোগিনীর চিকিৎসা দেয়ার পর্যায়ে মৃত্যু হতে পারে জানিয়ে ভূল চিকিৎসা, ভুল ঔষধ ইনজেকশন দেয়ায় রোগিনী অজ্ঞান অবস্তার পর্যায়ে  উল্লেখিত ৩ ডাক্তার পরস্পর যোগাযোগে তথ্য গোপন করে কালক্ষেপন করতে থাকে।

এক পর্যায়ে অভিজ্ঞ মেডিসিনের ডাক্তার কল দিয়ে রোগিনীর চিকিৎসার জন্য অনুরোধ করা সত্বেও ডাক্তারগন কোন কর্ণপাত করেনি। অবশেষে ৪ নভেম্বর দুপুর ১ ঘটিকায় ভূল চিকিৎসার কারনে মৃত্যুর ঘটনা গোপন রেখে রোগিনীর  মুখে  অক্সিজেনের মুখোশ পড়িয়ে ৩ ডাক্তার দ্রুত রোগিনীকে ঢাকায় নিয়ে যাওয়ার জন্য তাগাদা দিতে থাকে।

ডাক্তারদের প্রতি বিশ্বাস রেখে রোগীনিকে ডাক্তার ডিউক চৌধুরীর চিকিৎসার প্যাডে ঢাকা মেডিকেলে রেফারের কাগজপত্র নিয়ে ঢাকায় পৌছে বিকেল সাড়ে ৪টায়। ঢাকা ল্যাব এইড হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত ডাক্তার রোগিনীকে মৃত ঘোষনা করে এবং রোগিনী পুর্বেই মারা যায় বলে জানান। মৃত্যু সনদ সংগ্রহ পুর্বক পুনরায় এ্যাম্বুলেন্সযোগে ব্রাহ্মণবাড়িয়া পৌছে। এর আগেই এলাকায় মৃত্যুর সংবাদ ছড়িয়ে পড়ে।

৪ নভেম্বর রাত ১০টায় খৃীস্ট্রিয়ান মেমোরিয়াল হাসপাতালে উল্লেখিত ৩ ডাক্তারকে ভূল চিকিৎসায় মৃত্যুর ঘটনা অবহিত করলে ডাক্তারগন অধুনামৃত স্কুল শিক্ষিকা নওসীন আহাম্মদ দিয়ার স্বজনদের সাথে রুঢ় আচরণসহ প্রাণ নামের হুমকী দেয়। এই অবস্থায় লাশের কাছে চলে যায় স্বজনরা। পর দিন লাশ শেরপুর কবরস্থানে দাফন করা হয়।

এই ঘটনায় স্কুল শিক্ষিকার পিতা শিহাব আহাম্মদ গেন্দু বাদী হয়ে গত ১২ নভেম্বর ব্রাহ্মণবাড়িয়া অতিরিক্ত চীফ জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট  মুহাম্মদ আনোয়ার ছাদাত এর আদালতে ডাঃ ডিউক চৌধুরীকে প্রধান আসামী করে ৩ ডাক্তারের বিরুদ্ধে কোর্ট পিটিশন মামলা দায়ের করে।

মামলার অপর আসামীরা হলেন ডাঃ অরুনেশ্বর পাল অভি ও ডাঃ মোঃ শাহাদাত হোসেন রাসেল। আদালত পিটিশন আমলে নিয়ে সদর মডেল থানাকে এজাহার গ্রহন করে ব্যবস্তা নিতে নির্দেশ দেয়। থানা সুত্র নিশ্চিত করে জানায় থানায় নিয়মিত মামলা রজু হয়েছে এবং আসামী গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে