রবিবার , ১১ই এপ্রিল, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ ,২৮শে চৈত্র, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

ব্রাহ্মণবাড়িয়া সরাইলে পাগলা মহিষের গুতোয় এক গরুর মৃত্যু ”আহত দুই শিশু”

 ব্রাহ্মণবাড়িয়া সরাইলে পাগলা মহিষের গুতোয় এক গরুর মৃত্যু ”আহত দুই শিশু”

ডিঃব্রাঃ ডেস্কঃ

শুক্রবার সন্ধ্যায় ব্রাহ্মণবাড়িয়া সরাইল উপজেলায় পাগলা মহিষের হামলায় সুইটি-(১২) ও ফারহানা-(৬) নামে দুই শিশু আহত হয়েছে। এ সময় মহিষের গুতোয় একটি গরুও মারা যায়। উপজেলার নোয়াগাঁও ইউনিয়নের তেরকান্দা গ্রামের মধ্যপাড়ায় এ ঘটনা ঘটে।

আহত ফারহানা নোয়াগাঁও ইউনিয়নের তেরকান্দা গ্রামের দুলাল মিয়ার মেয়ে এবং সুইটি একই গ্রামের আতাহার আলীর মেয়ে। তারা সম্পর্কে ফুফু-ভাতিজী।

এলাকাবাসী ও পুলিশ জানায়, আগামী ঈদুল আজহা ( কোরবানী) উপলক্ষে বিক্রির জন্য স্থানীয় মহিষ ব্যবসায়ী আবদুল হক ১২টি মহিষ ক্রয় করেন। তিনি মহিষগুলোকে প্রতিদিন তেরকান্দা গ্রামের বিলের গোভামে ঘাষ খাওয়ান। অন্যান্য দিনের মতো শুক্রবার সন্ধ্যায় মহিষগুলোকে বিল থেকে বাড়িতে নিয়ে আসার সময় হঠাৎ একটি মহিষ পাগলাটে হয়ে তেরকান্দা মধ্যপাড়ার একটি বাড়িতে ঢুকে পড়ে। এ সময় বাড়ির উঠানে সুইটি ও ফারহানা খেলা করছিলো। উঠানে গিয়েই পাগলা মহিষ শিশু দুটিকে শিং দিয়ে গুতো দিলে শিশু দুটি আহত হয়। এ সময় মহিষটি একটি গরুকে শিং দিয়ে আঘাত করলে গরুটি মারা যায়।

আহত শিশু দুটিকে উদ্ধার করে প্রথমে সরাইল উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ও পরে ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

আহত সুইটির চাচা রতন মিয়া বলেন, শুক্রবার সন্ধ্যার দিকে পাগলা মহিষটি আমাদের বাড়ির উঠানে খেলারত অবস্থায় আমার ভাতিজি সহ দুই শিশুকে গুতো দিয়ে আহত করে।

এ ব্যাপারে ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেনারেল হাসপাতালের জরুরি বিভাগের চিকিৎসক ডা.আরিফুজ্জামান হিমেল জানান, মহিষের শিংয়ের গুতোয় দুই শিশু গুরুত্বর আহত হয়েছে। তাদেরকে সার্জারী বিভাগে ভর্তি করা হয়েছে। সুইটির পিঠে ও ফারহানা মাথায় আঘাত পেয়েছে। তাদেরকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে চিকিৎসা করানোর পরামর্শ দেয়া হয়েছে।

এ ব্যাপারে সরাইল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) নাজমুল আলম জানান, মহিষের আঘাতে দুই শিশু আহত এবং একটি গরু মারা গেছে বলে জেনেছি। পাগলা মহিষটি বর্তমানে কোথায় আছে তা কেউ নিশ্চিত করে বলতে পারছেন না।

digital

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *