মঙ্গলবার , ২১শে সেপ্টেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ ,৬ই আশ্বিন, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলায়ও নিরাপত্তা বাড়তে পুলিশের ২৭ এলএমজি পোস্ট

 ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলায়ও নিরাপত্তা বাড়তে পুলিশের ২৭ এলএমজি পোস্ট

ডিঃব্রাঃ ডেস্কঃ
নিরাপত্তা বেড়েছে ব্রাহ্মণবাড়িয়া পুলিশের। জেলা পুলিশের স্থাপনাগুলোর নিরাপত্তা জোরদারে ইতিমধ্যে ২৭টি স্থাপনায় বিশেষ নিরাপত্তা পোস্ট বা এলএমজি পোস্ট বসানো হয়েছে। এসব স্থাপনার মধ্যে রয়েছে পুলিশ সুপারের কার্যালয়, সকল থানা ভবন, ফাড়ি ও ক্যাম্প।

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (প্রশাসন ও অপরাধ) মো. রইস উদ্দিন এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

তিনি বলেন, সম্প্রতি হেফাজতে ইসলাম দেশের বিভিন্ন স্থানের পাশাপাশি ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় পুলিশের স্থাপনায় হামলা চালায়। এরই পরিপ্রেক্ষিতে পুলিশের স্থাপনাগুলোর নিয়মিত নিরাপত্তা ব্যবস্থা জোরদার করা হয়। পাশাপাশি অতিরিক্ত নিরাপত্তা ব্যবস্থা হিসেবে অত্যাধুনিক ও ভারী অস্ত্র দিয়ে বিশেষ নিরাপত্তা পোস্ট বসানো হয়েছে। এগুলো পরিচালনার জন্য দক্ষ ও পুলিশ সদস্যদের নিয়োগ দেওয়া হয়েছে।

শুক্রবার (০৯ এপ্রিল) দুপুর থেকে ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর মডেল থানায় গিয়ে পুলিশের একটি এলএমজি পোস্ট দেখা গেছে । থানা ভবনের পুলিশ ক্লাবের ছাদের ওপর বসানো ওই এলএমজি পোস্টে দুজন পুলিশ সদস্য এলএমজি নিয়ে অবস্থান করছেন।

এর আগে ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির বাংলাদেশ সফরের বিরোধিতা করে ২৬ থেকে ২৮ মার্চ পর্যন্ত হেফাজতে ইসলামের কর্মী-সমর্থকরা ব্রাহ্মণবাড়িয়ার বেশ কয়েকটি সরকারি-বেসরকারি স্থাপনায় হামলা চালিয়ে ভাঙচুর ও অগ্নিসংযোগ করে। তারা পুলিশ সুপারের কার্যালয়, সদর মডেল থানার ২নং পুলিশ ফাঁড়ি ও খাঁটিহাতা হাইওয়ে থানা ভবনেও আগুন দেয়। তিনদিনের ওই তাণ্ডবের ঘটনায় শতাধিক পুলিশ সদস্য আহত হন।

এর আগে নারায়ণগঞ্জ জেলার সাত থানা ও তদন্ত কেন্দ্রসহ আটটি পুলিশ ফাঁড়িতে নিরাপত্তা ব্যবস্থা জোরদার করতে ভারী অস্ত্রে সজ্জিত এলএমজি নিরাপত্তা পোস্ট স্থাপন করা হয়। বৃহস্পতিবার বিকেল থেকে যেকোনো ব্যক্তিকে তল্লাশির মধ্য দিয়ে প্রবেশ করতে হয় থানায়। একই সঙ্গে পুলিশের সংখ্যাও বাড়ানো হয়। একই দিন সিলেট শহরের ছয় থানায় এলএমজি পোস্ট স্থাপন করা হয়।

digital

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *