বুধবার , ৮ই ডিসেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ ,২৩শে অগ্রহায়ণ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

বিষ্ণুপুরের বর্তমান চেয়ারম্যানকে মনোনয়ন না দিতে কেন্দ্রীয় আওয়ামীলীগের সভাপতির নিকট আবেদন

 বিষ্ণুপুরের বর্তমান চেয়ারম্যানকে মনোনয়ন না দিতে কেন্দ্রীয় আওয়ামীলীগের সভাপতির নিকট আবেদন

ডিঃব্রাঃ ডেস্কঃ
ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলার বিজয়নগর উপজেলার বিষ্ণুপুর ইউনিয়নের বর্তমান চেয়ারম্যান মোঃ জামাল উদ্দিন ভূইয়াকে আবারও আসন্ন ইউপিতে নৌকা প্রতীকে মনোনয়ন না দেয়ার দাবী জানিয়ে বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নিকট আবেদন দিয়েছেন উপজেলা আওয়ামীলীগের সহ-সভাপতি ও ইউপি আওয়ামীলীগের সভাপতি আল মামুন। আবেদনে গত ৫ বছরে মোঃ জামাল উদ্দিন ভূইয়ার বিভিন্ন অনিয়ম-দুর্নীতিসহ স্বেচ্ছাচারিতার বিবরণ তুলে ধরে তার হাত থেকে ইউপি আওয়ামীলীগসহ ইউনিয়নের সর্বস্তরের জনগণকে রক্ষার আবেদন করা হয়। বিষ্ণুপুর ইউনিয়ন আওয়ামীলীগ ও অঙ্গ-সংগঠনের প্রায় ২৯ জন নেতাকর্মী স্বাক্ষরিত আবেদনটি গত ১৬ নভেম্বর বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের সভাপতির কার্যালয়ে আবেদনটি গৃহীত হয়।

আবেদন উল্লেখ করা হয়- ২০১৬ সনে ইউপি নির্বাচনে জামাল উদ্দিন ভূইয়াকে চেয়ারম্যান পদে মনোনয়ন দিলে ইউনিয়ন আওয়ামীলীগ ঐক্যবদ্ধ হয়ে নিরলস প্রচেষ্টার মাধ্যমে নৌকা প্রতীককে বিজয়ী করা হয়। চেয়ারম্যান নির্বাচিত হওয়ার পর জামাল উদ্দিন ভূইয়া বিষ্ণুপুর ইউনিয়নে দুঃশাসন, স্বেচ্ছাচারিতা, অনিয়ম ও লাগামহীন দুর্নীতিতে মেতে উঠেন। ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সাথে জামাল উদ্দিন ভূইয়ার অবাঞ্ছিত ব্যবহার ছিল নিত্যদিনের। মাদক ব্যবসায়ে জড়িত থাকায় ২০১৮ সনে জাতীয় পত্রিকায় তাকে নিয়ে প্রতিবেদন প্রকাশিত হয়। তিনি চেয়ারম্যান নির্বাচিত হওয়ার পরপরই ইউনিয়ন পরিষদ স্থাপনকালীন রোপন করা ঐতিহ্যবাহী রেইন ট্রি গাছ কেটে ফেলেন। ইউনিয়ন পরিষদের ইউএনও কর্তৃক স্থাপন করা ভিত্তিপ্রস্তরটি ভেঙ্গে ফেলেন।

চিরায়ত ঐতিহ্যবিরোধী জামাল উদ্দিন ভূইয়া ২০২০ সনে করোনাকালে প্রধানমন্ত্রীর দেয়া মোবাইল ব্যাংকিং মাধ্যমে নগদ সহায়তাপ্রাপ্ত সুবিধাভোগীদের তালিকা প্রণয়নে ব্যাপক অনিয়মের দরুন স্থানীয় সরকারের ইউনিয়ন পরিষদ আইনের ২০০৯ এর ৩৪(১) ধারামতে তাকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়। সেই থেকে অদ্যাবধি জামাল উদ্দিন ভূইয়া বরখাস্ত থেকেও কিভাবে তিনি ইউনিয়ন পরিষদ পরিচালনা করেন? জামাল উদ্দিন ভূইয়ার বিরুদ্ধে নারী কেলেঙ্কারীর অভিযোগে বিজয়নগর থানায় মামলা দায়ের হয়। বিষ্ণুপুর ইউনিয়নের নির্বাচিত ৮ জন প্রতিনিধি জামালের স্বেচ্ছাচারিতা ও অনিয়মের বিরুদ্ধে ইউএনও ও জেলা প্রশাসক ও স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয়ে একাধিক লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন। সাধারণ মানুষের অর্থ আত্মসাতের অভিযোগে জামাল উদ্দিন ভূইয়ার বিরুদ্ধে ব্রাহ্মণবাড়িয়া জজ কোর্টে একাধিক মামলা চলমান রয়েছে।

বিষ্ণুপুর ইউপি চেয়ারম্যান মোঃ জামাল উদ্দিন ভূইয়া এসব অভিযোগ অস্বীকার করেছেন। তিনি বলেন- আমার নামে যারা অভিযোগ দিয়েছে তাদের মধ্যে অনেকেই দুর্নীতিতে জড়িত। আর সাধারণ কয়েকজন আছেন তারা জানেনও না যে তারা আমার নামে অভিযোগ করেছেন।

ডিঃব্রাঃ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *