ব্রাহ্মণবাড়িয়ার বিজয়নগর উপজেলার পত্তন ইউনিয়নের মনিপুর বন্দর বাজারে ডাচ্-বাংলা ব্যাংক লিমিটেড এজেন্ট শাখার শুভ উদ্বোধন করা হয়েছে।
সোমবার (১০ জানুয়ারি) দুপুর ১২ টায় মনিপুর বন্দর বাজারে ডাচ্-বাংলা ব্যাংক এজেন্ট শাখার শুভ উদ্বোধন করেন উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান নাছিমা মুকাই আলী।
উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান আলোচক হিসেবে বক্তব্য রাখেন ডাচ্-বাংলা ব্যাংক লিমিটেড এজেন্ট বিভাগরের সিলেট ডিভিশনের হেড অব এজেন্ট কর্মকর্তা বিশ্বজিৎ দেবনাথ রানা।
এস এ এন্টারপ্রাইজ এর প্রোপাইটর ও মনিপুর বন্দর বাজার ডাচ্-বাংলা ব্যাংক এজেন্ট শাখার সত্ত্বাধিকারী বিশিষ্ট ব্যবসায়ী মোঃ এনামুল হক খোকনের সভাপতিত্বে ও পত্তন ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সভাপতি মোঃ সাইফুল ইসলামের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন পত্তন ইউনিয়নের নবনির্বাচিত চেয়ারম্যান বিশিষ্ট শালিসকারক মোঃ তাজুল ইসলাম। এতে শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন ডাচ্-বাংলা ব্যাংক লিমিটেড এজেন্ট বিভাগ ব্রাহ্মণবাড়িয়া এবি অফিসের সিনিয়র এরিয়া ম্যানেজার মাসুদ আল হোসাইন, সেলস্ ম্যানেজার জিয়া উদ্দিন, ডাচ্-বাংলা ব্যাংক বিজয়নগর মাস্টার এজেন্ট ও বিশিষ্ট ব্যবসায়ী এম অলি আহমেদ, পত্তন ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক মোঃ দুধ মিয়া, বিশিষ্ট শিক্ষানুরাগী ও সমাজসেবক কাজী তাজুল ইসলাম, বিশিষ্ট সমাজসেবক হৃদয় আহমেদ জালাল, ডাচ্-বাংলা ব্যাংক ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর উপজেলার মাস্টার এজেন্ট মোঃ ইব্রাহিম মিয়া, বিজয়নগর মাস্টার এজেন্টর ইনচার্জ মোঃ সুলতান আহমেদ সরকার।
অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন পত্তন ইউনিয়নের নবনির্বাচিত মেম্বার আনোয়ার হোসেন, ফারুক মিয়া, খোকন মিয়া মনিপুর বন্দর বাজারের ব্যবসায়ীবৃন্দসহ স্থানীয় গন্যমান্য ব্যক্তিবর্গ।
অনুষ্ঠানের শুরুতে ফিতা কেটে এজেন্টের শাখার শুভ উদ্বোধন ঘোষণা করেন আমন্ত্রিত অতিথিরা। পরে অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথিকে ফুল দিয়ে বরণ করেন ডাচ্-বাংলা ব্যাংক মনিপুর বন্দর বাজার এজেন্ট শাখার ইনচার্জ মোঃ জাবারুল ইসলাম সুমন। অনুষ্ঠান শেষে বিশেষ মোনাজাত করা হয়।
উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে অতিথিগন বলেন, বর্তমান আওয়ামীলীগ সরকার ক্ষমতায় আসার পর সরকারের মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ঘোষণা দেন গ্রামকে শহরে রূপান্তরিত করতে। এর ধারাবাহিকতায় প্রধানমন্ত্রীর তথ্য প্রযুক্তি উপদেষ্টা সজীব ওয়াজেদ জয়ের নিরলস প্রচেষ্টায় দেশকে ডিজিটাল প্রযুক্তির আওতায় নিয়ে আসেন। যার সুফল হিসেবে গ্রামীণ জনগোষ্ঠীকে ব্যাংকের সেবা দূরগোড়ায় পৌঁছে দিতে বাংলাদেশ ব্যাংকের নির্দেশনায় সকল ব্যাংকের এজেন্ট ব্যাংকিং কার্যক্রম শুরু করেন। যেখান থেকে গ্রামের একজন নিরক্ষর মানুষও আঙ্গুলের ছাপ দিয়ে একটি একাউন্ট খুলে টাকা উত্তালণ ও জমা দেওয়ার সুবিধা গ্রহণ করতে পারছে। পাশাপাশি এই একাউন্টের মাধ্যমে দেশের যে কোনো প্রান্ত থেকে নিরাপদে আর্থিক লেনদেন করতে পারছে। সরকারের এ মহতি উদ্যোগ ও ব্যাংক গুলোর আন্তরিক প্রচেষ্টার জন্য স্বস্ব কর্তৃপক্ষকেও ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা জ্ঞাপন করেন বক্তারা।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here