মঙ্গলবার , ২১শে সেপ্টেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ ,৬ই আশ্বিন, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়, মেডিকেল কলেজ, কৃষি বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠার দাবীতে জেলা ছাত্র মৈত্রীর মানববন্ধন।

 বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়, মেডিকেল কলেজ, কৃষি বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠার দাবীতে জেলা ছাত্র মৈত্রীর মানববন্ধন।


ডিঃব্রাঃ ডেস্কঃ
ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়, মেডিকেল কলেজ ও কৃষি বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠার দাবিতে শনিবার বিকেলে স্থানীয় প্রেস ক্লাবের প্রাঙ্গণে জেলা ছাত্র মৈত্রী’র উদ্যোগে মানববন্ধন কর্মসূচী অনুষ্ঠিত হয়েছে। জেলা ছাত্র মৈত্রীর সাবেক আহব্বায়ক ও বর্তমান কার্যকরী সদস্য মুহয়ী শারদ এর সভাপতিত্বে জেলা ছাত্র মৈত্রীর সাধারণ সম্পাদক সানিউর রহমানের সঞ্চালনায় বক্তব্য রাখেন- বিজয়নগর উপজেলার ওয়ার্কার্স পার্টির সাধারণ সম্পাদক সাংবাদিক দীপক চৌধুরী বাপ্পী, জেলা যুব মৈত্রীর আহব্বায়ক অ্যাডভোকেট মোঃ নাসির্, সাবেক ছাত্রনেতা ও জেলা যুব মৈত্রীর সদস্য সচিব ফরহাদুল ইসলাম পারভেজ, পিস ভিশনের সভাপতি শেখ জাহাঙ্গীর আলম, জেলা ছাত্রমৈত্রীর সভাপতি ফাহিম মুনতাসির সহ-সভাপতি ইসরাত জাহান, সাংস্কৃতিক বিষয়ক সম্পাদক ইশা ইসলাম, তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিষয়ক সম্পাদক সাইফুল ইসলাম, সমাজ কল্যাণ বিষয়ক সম্পাদক মোঃ জিহাদ, আসাদ ইসলাম অন্তর, ফাহিম মুনতাসির শান্ত, প্রমুখ।


মানববন্ধনে বক্তারা বলেন শিক্ষা, সংস্কৃতির পীঠ ভূমি ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় রয়েছে প্রাকৃতিক গ্যাস, সার কারখানা, বিদ্যুৎ উৎপাদন কেন্দ্র, আন্তর্জাতিক নদী বন্দর স্থলবন্দর সহ আরো অনেক গুরুত্বপূর্ণ প্রতিষ্ঠান। বাংলাদেশ রেলওয়ে পূর্বাঞ্চল জোনে ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় সবোর্চ্চ রাজস্ব আদায়কারী জেলা। প্রবাসী আয়, ব্যবস্যা-বানিজ্য সহ অন্যান্য ক্ষেত্রে ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলার রয়েছে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা।অথচ শিক্ষা-সংস্কৃতি রাজধানী খ্যাত ব্রাহ্মণবাড়িয়া শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ক্ষেত্রে পঞ্চাশ বছর পিছিয়ে রয়েছে। আজও ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় সরকারি কোন উচ্চ শিক্ষা প্রতিষ্ঠান প্রতিষ্ঠিত হয়নি। আমাদের পার্শ্ববর্তী হবিগঞ্জ, কুমিল্লা, চাঁদপুর জেলায় রয়েছে বিশ্ববিদ্যালয়, বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়, মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতাল ।

প্রায় ৩৪,০০,০০০ জনগণ বসবাস করে এ জেলায়। ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা যোগাযোগ ও ভৌগোলিকভাবে অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ স্থানে অবস্থিত। তাই ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় উল্লেখিত তিনটি উচ্চ শিক্ষা প্রতিষ্ঠান প্রতিষ্ঠা করা ব্রাহ্মণবাড়িয়াবাসীর ন্যায্য, যুক্তি ও প্রাণের দাবি। তারা উক্ত দাবিগুলো বাস্তবায়নের জন্য সকল রাজনৈতিক দল, সংগঠন সাংস্কৃতিক ও সামাজিক সংগঠনগুলো কে ঐক্যবব্ধ আন্দোলন গড়ে তোলার আহব্বান জানান।

এছাড়া বক্তারা আরো বলেন- মহাসড়ক উন্নয়নের কারণে আশুগঞ্জ পলাশ এ্যগ্রো ইরিগ্রেন (মাহবুদুল হুদা আশুগঞ্জ পলাশ সবুজ প্রকল্প) প্রকল্প হুমকির মুখে সেচ প্রকল্প ও সড়ক উন্নয়ন প্রকল্প সম্মিলিত ভাবে সিদ্ধান্ত বাস্তবায়নের দাবি জানান। এক্ষেত্রে সংশ্লিষ্টদের উদাসীনতাই উদ্বেগ প্রকাশ করা হয়।

digital

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *