সোমবার , ২০শে সেপ্টেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ ,৫ই আশ্বিন, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

বঙ্গবন্ধু হত্যার নেপথ্যে কারা জড়িত ছিল তদন্ত করে তা সামনে আনা হোক; মোকতাদির চৌধুরী এমপি

 বঙ্গবন্ধু হত্যার নেপথ্যে কারা জড়িত ছিল তদন্ত করে তা সামনে আনা হোক; মোকতাদির চৌধুরী এমপি

ডিঃব্রাঃ ডেস্কঃ
ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর আসনের সংসদ সদস্য ও বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি, যুদ্ধাহত মুক্তিযোদ্ধা র.আ.ম. উবায়দুল মোকতাদির চৌধুরী বলেছেন, বঙ্গবন্ধুর আত্মজীবনীতে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান সাম্প্রদায়িকতার বিপক্ষে লিখেছেন। শক্ত গণতন্ত্রের পক্ষে বলেছেন। ধনী দরিদ্র বৈষম্য কমিয়ে একটি সুচারু গণতান্ত্রিক অর্থনৈতিক কথা বলেছেন।
তিনি আজ রোববার সকালে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪৬তম শাহাদাত বার্ষিকী উপলক্ষে জেলা প্রশাসন আয়োজিত ভার্চুয়ালি আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে একথা বলেন।

জেলা প্রশাসক হায়াত-উদ-দৌলা খাঁনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে র.আ.ম. উবায়দুল মোকতাদির চৌধুরী এমপি আরো বলেন, আমরা বঙ্গবন্ধুর আদর্শ থেকে দূরে সরে আসছি। আমরা ষড়যন্ত্রকারীদের চিহ্নিত করে সামনে আনতে পারিনি। অনেকেই ষড়যন্ত্র করেছিল। তাদের মুখোশ উম্মোচন করা দরকার ছিলো। তিনি প্রশ্ন তুলে বলেন, কেন তাহের উদ্দিন ঠাকুর ও নূরুল ইসলাম মঞ্জুরের সাজা হল না? কে.এম. উবায়দুর রহমান, শাহ মোয়াজ্জেম হোসেন ছাড় পেয়ে গেল। তারা ভালো মানুষ হয়ে গেলে। কয়েকজন সেনা কর্মকর্তার ফাঁসি হয়ে গেল। ওরা কয়েকজন কেবল অপরাধী ? আর কেউ অপরাধী না ?

বঙ্গবন্ধু হত্যার পেছনে কি আর কারো ইন্ধন নেই নেই? অংশ গ্রহন নেই। নেপথ্যে কারা জড়িত ছিল তদন্ত করে সামনে আনা হোক। আমরা নেপথ্যের ঘটনার অবসান চাই। তিনি বলেন, বঙ্গবন্ধুকে হত্যার পর সারাদেশে আলবদর, রাজাকার, স্বাধীনতা বিরোধী যারা ছিল, তারা সকলেই সেদিন মাঠে নেমে এসেছিল। সে দিনের অবস্থাদৃষ্টে মনে হয়ে ছিলো দেশটা তাদের হয়ে গেছে।

সভায় বক্তব্য রাখেন পুলিশ সুপার মোহাম্মদ আনিসুর রহমান, পৌরসভার মেয়র মিসেস নায়ার কবির, জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আল মামুন সরকার, ব্রাহ্মণবাড়িয়া সরকারি কলেজের অধ্যক্ষ প্রফেসর ডঃ মোঃ শাহ আলম, সিভিল সার্জন ডাঃ একরাম উল্লাহ, কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর, ব্রাহ্মণবাড়িয়ার উপ-পরিচালক রবিউল হক মজুমদার, জেলা জাসদ সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা আকতার হোসেন সাঈদ, চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রির সভাপতি আজিজুল হক, ব্রাহ্মণবাড়িয়া মেডিকেল ও হাসপাতালের প্রতিষ্ঠাতা ও চেয়ারম্যান ডাঃ আবু সাঈদ, জেলা জাসদ সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা আকতার হোসেন সাঈদ, জেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক অ্যাডভোকেট মাহবুব আলম খোকনসহ বিভিন্ন শ্রেনী পেশার মানুষ।

আলোচনা সভার শুরুতে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও ১৫ আগষ্ট শাহাদাৎকারী সকলের আত্মার মাগফেরাত কামনা করে দোয়া অনুষ্ঠিত হয়। দোয়া মাহফিল পরিচালনা করেন ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা জামে মসজিদের খতিব মাওলানা সিগবাহতুল্লাহ নূর।

digital

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *