সোমবার , ২০শে সেপ্টেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ ,৫ই আশ্বিন, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

নৌকার ধাক্কায় ভেঙে পড়ল সেতু

 নৌকার ধাক্কায় ভেঙে পড়ল সেতু

ডিঃব্রাঃ ডেস্কঃ
ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আখাউড়া উপজেলার ধরখার বিলের মাঝে অবস্থিত ২২ বছর আগে প্রায় অর্ধকোটি টাকা ব্যয়ে সেতুটি নির্মাণ হলেও সড়ক সংযোগ না থাকায় কোনো কাজে আসছিল না। শেষ পর্যন্ত ইঞ্জিনচালিত নৌকার ধাক্কায় সেতুটির প্রায় অর্ধেক ভেঙে গেছে। আজ শুক্রবার সকাল নয়টার দিকে সেতুটিতে নৌকার ধাক্কা লাগে। এতে নৌকায় থাকা খালেক নামে এক ব্যক্তি আহত হন। তিনি প্রাথমিক চিকিৎসা নিয়েছেন।

স্থানীয় একাধিক সূত্র নৌকার ধাক্কার সেতু ভেঙে পড়ার খবর নিশ্চিত করেছে। তবে সেতুর বাস্তবায়নকারী কর্তৃপক্ষের কেউ শুক্রবার বিকেল সাড়ে চারটা নাগাদ ঘটনাস্থলে যাননি। যে কারণে তাদের কাছ থেকে সঠিক কোনো তথ্য পাওয়া যায়নি।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আখাউড়া উপজেলার ধরখার ইউনিয়নের বনগজ ও কৃষ্ণনগর গ্রামের বিলের মাঝামাঝি সেতুটির অবস্থান। ওই দুই গ্রামসহ উপজেলার মোগড়া ইউনিয়নের ভবানীপুর এবং ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর উপজেলার ঘাটিয়ারা ও বরিশল গ্রামের মানুষের চলাচলের কথা চিন্তা করে ১৯৯৯ সালে সেতুটি নির্মাণ করা হয়। কিন্তু সেতুটি সমতল থেকে ১৫ ফুট উঁচুতে নির্মাণ করা ও এর সঙ্গে সড়ক সংযোগ না থাকায় কোনো কাজে আসছিল না। স্থানীয় সরকার ও প্রকৌশল বিভাগ (এলজিইডি) বাস্তবায়ন করা সেতুটির দৈর্ঘ্য ১২০ ফুট ও প্রস্থ আট ফুট।

অভিযোগ রয়েছে, শুধুমাত্র আর্থিকভাবে নিজেরা লাভবান হতে কোনো ধরণের পরিকল্পনা ছাড়াই তখন এ ধরণের সেতু নির্মাণ করা হয়। ওই সময়ে উপজেলায় এমন আরো একাধিক সেতু নির্মাণ করা হলে এলাকার মানুষ সমালোচনা করেন।

মো. আরমান ও আব্দুল্লাহ নামে স্থানীয় দুই যুবক জানান, সেতুটি এলাকার মানুষের কোনো কাজে আসছিল না। সেতু যেখানে করা হয় সেখানে অন্য কোনো যানবাহন তো দূরের কথা বাই সাইকেলও চলে না। শুক্রবার সকালে নৌকার ধাক্কায় সেতুটি ভেঙে যায়। বিষয়টি দেখতে পেয়ে তারা সেখানে ছুটে আসেন।

নৌকার মাঝি মো. রফিক মিয়া বলেন, ‘সরাইল থেকে সাত হাজার ইট নিয়ে আখাউড়ার গোলখার এলাকায় যাচ্ছিলাম। ওই সেতুর নিচে যাওয়া মাত্র পানির তোড়ে নৌকার একটি অংশ সামান্য ধাক্কা খায়। এতে সেতুর অংশ ভেঙে পড়ে। এতে নৌকাটি ডুবে যায়। সেতুতে থাকা ১১ জনের মধ্যে একজন আঘাতপ্রাপ্ত হন।

এলজিইডি’র উপ-সহাকরী প্রকৌশলী মো. জহিরুল ইসলাম শুক্রবার বিকেলে এ প্রতিবেদকে জানান, সেতু ভেঙে পড়ার খবর তারা পেয়েছেন। তবে কতটুকু কি হয়েছে সে সম্পর্কে তিনি নিশ্চিত করে কিছু বলতে পারছেন না। ঘটনাস্থলের উদ্দেশ্যে তিনি যাচ্ছেন।

digital

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *