রবিবার , ১১ই এপ্রিল, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ ,২৮শে চৈত্র, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

তান্ডবে ব্যাপক ক্ষতি সাধনঃ পৌরসভার কার্যক্রম ব্যাহত

 তান্ডবে ব্যাপক ক্ষতি সাধনঃ পৌরসভার কার্যক্রম ব্যাহত

ডিঃব্রাঃ ডেস্কঃ
হেফাজতে ইসলামের গত ২৮ মার্চের হরতালে ব্রাহ্মণবাড়িয়া পৌরসভার ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি হওয়ায় পৌরসভার সব কার্যক্রম বন্ধ রয়েছে বলে জানান পৌর মেয়র নায়ার কবির। হরতালের দিন (২৮ মার্চ) থেকে শুরু করে আজ ৩ এপ্রিল পর্যন্ত সাত দিন ধরে পৌর এলাকার বর্জ্য অপসারণ করতে পারছে না পৌর কর্তৃপক্ষ।
তিনি বলেন, ‘গানপাউডার ও পেট্রোল ঢেলে পৌরসভা ও পৌর মিলনায়তনের সব কিছুতে আগুন ধরিয়ে দেওয়া হয়েছিল। দ্রুত সময়ের মধ্যে সকল কার্যক্রম স্বাভাবিক করার চেষ্টা চলছে।

শনিবার (৩ এপ্রিল) দুপুরে জেলা শহরের পাইকপাড়ায় নিজ বাড়িতে সংবাদ সম্মেলন করে এ তথ্য জানান মেয়র।

মেয়র নায়ার কবির বলেন, হেফাজত ইসলামের কর্মী-সমর্থকদের সঙ্গে বিএনপি-জামায়াতের নেতাকর্মীরা এবং বিগত পৌরসভা নির্বাচনে পরাজিত দুই প্রার্থীর সমর্থকরা গানপাউডার ও পেট্রোল ঢেলে পৌরসভা ও পৌর মিলনায়তনের সবকিছু জ্বালিয়ে দিয়েছে। এ সময় ভীতস্বন্ত্রস্ত পৌর কর্মকর্তা-কর্মচারীরা পার্শ্ববর্তী সুইপার কলোনিতে পালিয়ে জীবন রক্ষা করে।

হামলাকারীরা আমার বাসভবনেও ভাঙচুর, লুটপাট চালায়। বাসার নিচের একটি দোকানের মালামাল লুটপাট করে। হামলার কারণে পৌরসভার সকল কার্যক্রম বন্ধ রয়েছে। দ্রুত সময়ের মধ্যে সকল কার্যক্রম স্বাভাবিক করার চেষ্টা চলছে।
এ সময় মেয়রের সঙ্গে পৌরসভার কাউন্সিলর ও কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

পৌরসভা সূত্র জানা যায়, ভাঙচুর ও অগ্নিসংযোগে পৌর কার্যালয়ের পাঁচটি এসি, ২৫টি কাঠের আলমারি, ২০টি স্টিলের আলমারি, ১৮টি কম্পিউটার, পাঁচটি ল্যাপটপ, চারটি ফটোকপি মেশিন, ৩৪টি টেবিল, সাতটি সেক্রেটারিয়েট টেবিল ও ১১৫টি চেয়ার ক্ষতিগ্রস্ত হয়।

এ ছাড়াও ১৬টি গাড়ি, তিনটি রোড রোলার, একটি মশা নিধন গাড়িসহ স্বাস্থ্য শাখার ১২টি ডিপ ফ্রিজ, চারটি সাধারণ ফ্রিজ, ভ্যাকসিন, সিলিং ফ্যান, স্টোরে সংরক্ষিত ১০ হাজার এলইডি বাতি, তিন হাজার বাতি শেড ও ৫০ কয়েল বৈদ্যুতিক তারসহ আরও অনেক জিনিসপত্র ভাঙচুর, অগ্নিসংযোগ এবং লুটপাট করা হয়েছে।

পৌরসভার সংরক্ষণ শাখার মালামাল, ষ্টেশনারী সামগ্রী, বাড়ির প্ল্যান অনুমোদনের পে-অর্ডারসহ নথি, চেক রেজিস্ট্রার, ইস্যু রেজিস্ট্রার, ক্যাশ বই, অ্যাসেট রেজিস্ট্রার, কর্মকর্তা-কর্মচারীদের ব্যক্তিগত নথি ও সার্ভিস বই, সব রেজিস্ট্রার, ঠিকাদারদের বিল-জামানতের নথিসহ বিভিন্ন মালামাল আগুনে পুড়ে গেছে বলেও তালিকায় উল্লেখ করা হয়েছে।

পৌরসভার মালিকানাধীন সুর সম্রাট ওস্তাদ আলাউদ্দিন খাঁ পৌর মিলনায়তনে অগ্নিসংযোগ করে হরতালকারীরা। এতে আগুনে পুড়ে ছাই হয়ে যায় মিলনায়তনের পাঁচশ চেয়ার, ২০ সেট সোফা, পাঁচ টনের ২০টি এসি, দুই টনের ১০টি এসি এবং ১৫০টি সিলিং ফ্যান।

digital

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *