মঙ্গলবার , ২রা মার্চ, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ ,১৭ই ফাল্গুন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

ইদানিং বেশ কিছু ভন্ডামি বিজ্ঞাপন দেখতে দেখতে ক্লান্ত হয়ে পড়ছি।

 ইদানিং বেশ কিছু ভন্ডামি বিজ্ঞাপন দেখতে দেখতে ক্লান্ত হয়ে পড়ছি।

ডা. মুহিব্বুর রহমান রাফে,

ইদানিং বেশ কিছু ভন্ডামি বিজ্ঞাপন দেখতে দেখতে ক্লান্ত হয়ে পড়ছি।
ব্যাকা-চ্যাকা মেরুদন্ড সোজা করার দন্ড।
আরে, মেরুদণ্ড তো বাঁকা করেই তৈরি করা হয়েছে। যখন প্রয়োজন বাঁকা হয়ে থাকবে, আবার যখন প্রয়োজন শেষ হবে, নরমাল কার্ভেচার এ ফেরত আসবে। রোগীদের জন্য তৈরি করা বিশেষ ধরনের টেইলর ব্রেসকে রোগবিহীন মানুষের কাছে মুলো ঝুলিয়ে বিক্রির জন্য এই ভন্ডামি চলছে। এর স্বপক্ষে কোন রেফারেন্স আছে?
প্রত্যেকটি ভার্টিব্রা সাথে একাধিক জয়েন্ট আছে এবং তাকে ঘিরে আছে মাংসপেশী। নাড়াচড়ার ভেতরেই জয়েন্ট এর সার্থকতা। যখন আপনি তাকে বিনা প্রয়োজনে জোর করে বেঁধে রাখবেন, দিনের পর দিন ঘটনা ঘটতে থাকলে, এক সময় সে বিদ্রোহ ঘোষণা করে উঠতে পারে। দ্বিতীয়তঃ মাংসপেশীগুলো নড়াচড়ার ভেতর দিয়ে নিজেদের কাজগুলোকে আপনার অজান্তেই গুছিয়ে নিতে থাকে। তাকে আটকে রাখলে সেখানে ডিজইউজ এট্রোফি বা মাংসপেশি শুকিয়ে যাবার মতো ঘটনা ঘটতে পারে। এটি আরো বিপদজনক।
দীর্ঘ সময় ঝুকে কাজ করার জন্য কোন সমস্যা হলে, বাঁকা মেরুদন্ড সোজা করার জন্য কোন কিছু লাগাবার কোন প্রয়োজন নেই বরং প্রয়োজন দিনের নির্দিষ্ট সময়ে সেই মাংসপেশিগুলোকে নির্দিষ্ট কিছু এক্সারসাইজের মাধ্যমে শক্তিশালী করা। কথাগুলো আপনার প্রিয়জনদের সাথে বেশি বেশি শেয়ার করুন। এটাই বিজ্ঞান ও স্বাস্থ্য সম্মত। এসব প্রতারণার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া উচিত।

 

ডা. মুহিব্বুর রহমান রাফে, এমডি
ফিজিয়াট্রিষ্ট এন্ড রিজেনারেটিভ মেডিসিন স্পেশালিস্ট
কনসালটেন্ট
ফিজিক্যাল মেডিসিন এন্ড রিহ্যাবিলিটেশন বিভাগ।
সরকারি কর্মচারী হাসপাতাল, ঢাকা।

digital

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *