ইতালি প্রবাসীর বিরুদ্ধে প্রকাশিত সংবাদের প্রতিবাদ

0

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার নবীনগর উপজেলার বিদ্যাকুট ইউনিয়নের বিদ্যাকুট গ্রামে ইতালি প্রবাসী মো. তাজুল ইসলাম কর্তৃক আপন ভাই-ভাতিজা ও ভাবীকে হেনস’া করার অভিযোগের বিষয়ে দৈনিক প্রজাবন্ধু ও দৈনিক কুরুলিয়াসহ কয়েকটি গণমাধ্যমে প্রকাশিত সংবাদটি আমার দৃষ্টিগোচর হয়েছে। প্রকাশিত ওই সংবাদে উদুর পিন্ডি বুদুর ঘাড়ে চাপানোর চেষ্টা করা হয়েছে।

প্রকৃতপক্ষে আমি ইতালি অবস’ান করার কারণে গ্রামে থাকা আমার জায়গা ও পুকুর স’ানীয় ব্যক্তিদের কাছে ইজারা দেই। কিন’ ইজারাদারদের এই সম্পত্তি ভোগে বাধা সৃষ্টি করেন কাস্টমস কর্মকর্তা ছদর উদ্দিন মানিক।

মানিক ও তার পরিবারের লোকজন আমার জায়গা থেকে লক্ষাধিক টাকার গাছ কেটে নেয় এবং পুকুরে মাছ চাষে বাধা দেয়। পুকুরে বিষ প্রয়োগ করে মাছ মেরে ফেলার হুমকি দেওয়া হয়। বিভিন্ন সময় তাদের অত্যাচারের শিকার হয়ে আমি নিজে নবীনগর থানায় একটি অভিযোগ দেই। এই অভিযোগের সত্যতা পেয়ে পুলিশ প্রতিবেদন দেয়।

এছাড়া আমার জায়গার ইজারাদাররা তাদের বিরুদ্ধে একাধিক মামলা করেছেন। কাস্টমস কর্মকর্তা মানিক ও তার পরিবারের লোকজন মিলে আমার পৈতৃক ও ক্রয়সূত্রে পাওয়া বাড়ি সংলগ্ন ১১ শতাংশ জমি এবং ২৪ শতাংশের একটি পুকুরের জায়গা গ্রাস করার জন্য দীর্ঘদিন ধরে এই অপতৎপরতা চালাচ্ছে।

এছাড়া ৪১ শতাংশ আয়তনের আমার অন্য আরেকটি জায়গায় একটি স্কুল রয়েছে। সেই স্কুলের একটি কক্ষে আমার ভাই তাহের মিয়া জোরপূর্বক দোকান দিয়েছে। এ সব থেকে পরিত্রাণ চেয়ে আমি ইতালিস’ বাংলাদেশ দূতাবাসেও আবেদন করেছি। এ ব্যাপারে বিভিন্ন গণমাধ্যমে সাংবাদও প্রকাশিত হয়। সত্য ঘটনাকে আড়াল করতেই মানিক ও তার পরিবারের লোকজন এখন আমার বিরুদ্ধে মিথ্যাচার করছে। আমি এ বিষয়ে প্রকাশিত সংবাদের তীব্র প্রতিবাদ জানাই।

প্রতিবাদকারী
মো. তাজুল ইসলাম

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে