আজ ২৯ এপ্রিল বিশ্ব নৃত্য দিবস।

0

আবদুল মতিন শিপনঃ ডিঃ ব্রাঃ
নৃত্য প্রশিক্ষক,আনন্দলোক সাংস্কৃতিক কেন্দ্র।

“মম চিত্তে নিতি নৃত্যে কে যে নাচে
তাতা থৈ থৈ, তাতা থৈ থৈ, তাতা থৈ থৈ।”

আজ বিশ্ব নৃত্য দিবস।১৯৯২ সালে দিবসটি ইউনেস্কোর স্বীকৃতি লাভ করে। ১৯৯৫ সাল থেকে বাংলাদেশে পালিত হয়ে আসছে বিশ্ব নৃত্য দিবস। আয়োজন করা হয় নানান অনুষ্ঠানের। দিবসটি উদযাপন করা হয় ব্যালে নৃত্যের স্রষ্টা জ্যঁ জস নুভেরের জন্মদিনে। এই মহান শিল্পীকে চিরস্মরণীয় করে রাখার জন্য ১৯৮২ সালে ইউনেস্কো ২৯ এপ্রিলকে আন্তর্জাতিক নৃত্য দিবস হিসেবে নির্ধারণ করে।

আনন্দলোক সাংস্কৃতিক কেন্দ্র প্রতিবছর নানান আয়োজনের মধ্য দিয়ে এই দিবসটিকে উদযাপন করে আসছে।এছাড়াও সারা পৃথিবীব্যাপি নৃত্য সংগঠনগুলো বর্ণাঢ্য শোভাযাত্রা, আলোচনা, সম্মাননা প্রদান ও নৃত্যানুষ্ঠানের মধ্য দিয়ে দিনব্যাপী দিবসটি উদযাপন করে আসত।যাতে রাজধানীর বিভিন্ন নৃত্যসংগঠন ও শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের পরিবেশনায় থাকত নৃত্যানুষ্ঠান।বিশ্বব্যাপী মহামারী করোনা ভাইরাসের জন্য এ বছর সকল কার্যক্রম বন্ধ করা হয়েছে।
আনন্দলোক সাংস্কৃতিক কেন্দ্রের প্রতিষ্ঠাতা পরিচালক সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব জনাব আসিফ ইকবাল এক বিবৃতিতে বলেন “নৃত্যচর্চায় আগামীর সুস্হ পৃথিবীকে মেধা ও মননে বিকশিত করার মাধ্যমে সমাজের কুপমু-কতা সাফ হবে এবং সংস্কৃতির মেলবন্ধনে নৃত্য গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখতে পারবে বলে তিনি বিশ্বাস করেন। নৃত্য প্রশিক্ষক আবদুল মতিন শিপন পৃথিবীতে সকল নৃত্যশিল্পীদের শুভেচ্ছা জানান এবং আগামীর সুস্হ পৃথিবীর প্রত্যাশায় স্বাস্থ্য সুরক্ষায় সকলকে সচেতন থাকার আহবান জানান।

আজকে রাত ৮টায় অনলাইন আড্ডায় “আনন্দলোক সাংস্কৃতিক কেন্দ্রের” সদস্যদের নিয়ে আগামীর সম্ভবনাময় পৃথিবীতে নৃত্যের বিকাশ ও গুরুত্ব নিয়ে আলোচনা ও নৃত্য প্রদশর্ন করবে জাতীয় পুরষ্কার প্রাপ্ত নৃত্যশিল্পী জুনায়েদ হোসেন ও আনন্দলোক সাংস্কৃতিক কেন্দ্রের নৃত্যশিল্পীরা।

গরজে বরিষে মেঘদল গাইছে,ঝমঝম নৃত্যে কিশোরী নাইছে,
উত্তাল ছন্দ বাজে তটিনী চিত্তে,জলছাপ ফেলে, প্রেম নিমিত্তে!”

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে