রবিবার , ১১ই এপ্রিল, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ ,২৮শে চৈত্র, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

আখাউড়ায় স্ত্রী-শাশুড়ির শরীরে অ্যাসিড নিক্ষেপ

 আখাউড়ায় স্ত্রী-শাশুড়ির শরীরে অ্যাসিড নিক্ষেপ

ডিঃব্রাঃ ডেস্কঃ
শুক্রবার (১৯ মার্চ) দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে ব্রাহ্মণবাড়িয়া আখাউড়া উপজেলা ধরখার ইউনিয়নের ভাটামাথা গ্রামে পারিবারিক কলহের জের ধরে শ্বশুর বাড়িতে এসে স্ত্রী-শাশুড়িকে অ্যাসিড নিক্ষেপ করে আহত করার অভিযোগ উঠেছে জামাইয়ের বিরুদ্ধে। আহত ওই দুই নারীকে উদ্ধার করে ২৫০ শয্যাবিশিষ্ট ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

আহতরা হলেন-আখাউড়া উপজেলার ধরখার ইউনিয়নের ভাটামাথা গ্রামের কালিপদ পালের স্ত্রী পুতুল রাণী পাল (৫০) ও তার মেয়ে চন্দনা পাল (৩০)।

হাসপাতালে নিয়ে আসা অজিত পাল নামের এক ব্যক্তি বলেন, ‘পুতুল পাল আমার শাশুড়ি ও চন্দনা পাল আমার শ্যালিকা হন। প্রায় ১০ বছর আগে চন্দনা পালকে ঢাকার তাঁতী বাজারের স্বর্ণ ব্যবসায়ী নিতাই পালের ছেলে আনন্দ পালের সঙ্গে বিয়ে দেয়া হয়। তাদের পরিবারে একটি ছেলেসন্তান রয়েছে। আনন্দ পাল জুয়াড়ি প্রকৃতির লোক ছিলেন। এনিয়ে তাদের মধ্যে কলহ চলে আসছিল।’

তিনি আরও বলেন, ‘করোনার লকডাউনের মধ্যে আনন্দ পাল জুয়া খেলে অনেক টাকা ঋণী হয়ে যান। এনিয়ে চন্দনা পাল ও আনন্দ পালের মধ্যে কলহ চরম আকার ধারণ করে। পরে চন্দনাকে আমরা ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় নিয়ে আসি। প্রায় এক বছর ধরে চন্দনা ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আখাউড়ার ভাটামাথা গ্রামে বাবার বাড়িতে বসবাস করে আসছেন। ইদানীং স্বামী আনন্দ পাল ফোনে ঢাকায় চলে যাওয়ার জন্য তাকে চাপ দিয়ে আসছিলেন।’

‘শুক্রবার সকালে আনন্দ পাল ভাটামাথা গ্রামে চন্দনাদের বাড়িতে ব্যাগে কাপড় নিয়ে বেড়াতে আসেন। আসার পর চন্দনাকে ঢাকায় ফিরে যেতে চাপ দেন। তখন চন্দনা জানান, আনন্দ পাল ঋণ শেষ করার পর তিনি শ্বশুর বাড়ি ফিরে যাবেন। অন্যথায় যাবেন না। এনিয়ে আনন্দ পাল তাকে (চন্দনা) মারধর করেন। পরে তার কাপড়ের ব্যাগ থেকে এক বোতল অ্যাসিড চন্দনার শরীরে নিক্ষেপ করেন। এসময় চন্দনা চিৎকার করে দৌড়ে পালিয়ে যাওয়ার সময় তার মা পুতুল পাল আসলে, তার শরীরেও অ্যাসিড ছুড়ে মারেন। পরে তিনি পালিয়ে যায়। পরে স্থানীয়রা তাদের দুজনকে উদ্ধার করে ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর হাসপাতালে ভর্তি করান’

এ বিষয়ে আখাউড়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মিজানুর রহমান বলেন, ‘অ্যাসিড নিক্ষেপ করা হয়েছে, এমন একটি তথ্য পেয়েছি। বিষয়টি জানতে ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠানো হয়েছে। এছাড়া হাসপাতালেও পুলিশ পাঠানো হয়েছে। বিস্তারিত জেনে বলা যাবে।’

digital

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *